সাবেক এমপি শওকত ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করবে দুদক

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

সাবেক এমপি শওকত ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করবে দুদক

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৯:০৮ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০১৯

সাবেক এমপি শওকত ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করবে দুদক

জাতীয় পার্টির নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরীর বিরুদ্ধে সোয়া ৯ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা দায়েরের অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এছাড়া তার স্ত্রী মাহবুবা খাতুনের বিরুদ্ধে ১ কোটি ২১ লাখ ৩৯ হাজার ৭০০ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে আরো একটি মামলা করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার কমিশনের প্রধান কার্যালয় থেকে পৃথক পৃথক দুই মামলা অনুমোদন দেওয়া হয় বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

শিগগিরই মামলা দুটি দায়ের করা হবে।

শওকত চৌধুরী ও তার স্ত্রী মাহবুবা খাতুনের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ অনুসন্ধান করেন দুদকের উপপরিচালক মো. নাসির উদ্দিন।

অনুসন্ধান প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, মেসার্স যমুনা এগ্রো কেমিক্যালস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী ও জাপা নেতা শওকত চৌধুরী কমিশনে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে তার ১১ কোটি ২২ লাখ ৩৫ হাজার ১৩৭ টাকার সম্পদ আছে বলে উল্লেখ করেন।

কিন্তু সম্পদ বিবরণী যাচাই করে তার ১৩ কোটি ৭৩ লাখ ৭৫ হাজার ১৩৭ টাকার সম্পদ পাওয়া যায়। তিনি ২ কোটি ৫১ লাখ ৪০ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন।

অন্যদিকে, সম্পদ বিবরণী যাচাই করে শওকত চৌধুরীর মোট সম্পত্তির মধ্যে ৪ কোটি ৪৬ লাখ ৪৫ হাজার ২৯৬ টাকার সম্পদের বৈধ উৎস পাওয়া যায়। আর বাকি ৯ কোটি ২৬ লাখ ১২ হাজার ৩৪১ টাকার সম্পদ তিনি অবৈধভাবে অর্জন করেছেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

অপরদিকে, মাহবুবা খাতুন দুদকের দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে তার ১ কোটি ২১ লাখ ৩৪ হাজার ২০০ টাকার সম্পদ আছে বলে উল্লেখ করেন।

তবে দুদকের অনুসন্ধানে তার ১ কোটি ৩৯ লাখ ৩৪ হাজার ২০০ টাকার সম্পদের খোঁজ পাওয়া যায়। তিনি ১৮ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন।

এ ছাড়া, মাহবুবা খাতুন বৈধভাবে ১৫ লাখ ৮৯ হাজার ৫০০ টাকার সম্পদ অর্জন করলেও বাকি ১ কোটি ২১ লাখ ৩৯ হাজার ৭০০ টাকার সম্পদ অবৈধভাবে অর্জন করেছেন বলে দুদকের অনুসন্ধানে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

টিএটি/এসবি