বনানীতে শোকের ছায়া

ঢাকা, ১৭ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

বনানীতে শোকের ছায়া

সালাহউদ্দিন জসিম ২:৪২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

বনানীতে শোকের ছায়া

জায়ান এসেছে, জায়ান। এ শব্দটি বনানীর ২/এ সড়কের ৯ নম্বর বাড়ির আনন্দ-উল্লাসের খবর ছিল। পুরো বাড়ি মাতিয়ে রাখার মতো ব্যাপার হতো। আজ সে জায়ান এসেছে। কিন্তু আনন্দ-উল্লাসের জন্য নয়, সবাইকে কাঁদাতে। আজ জায়ানের আগমনে বনানীর আকাশ-বাতাস ভারি হয়েছে। জায়ানের নিথর দেহের মতো পুরো এলাকায় পিনপতন নীরবতা। বাড়িজুড়ে কান্না, সবার মাঝে শোক।

ইতিমধ্যে তাকে দেখতে তার পরিবার, বাবা-দাদার সহকর্মী-স্বজন সবাই এসেছেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও আসবেন বেলা আড়াইটায়। আদরের নাতি যে কী না সাক্ষাৎ হলেই প্রধানমন্ত্রীকে জড়িয়ে চুমু খেতো। আজ তার নিথর দেহ দেখতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে।

সদাহাস্যেজ্বল ও ক্রিকেটপ্রেমী জায়ান বনানীর সব শিশুদের প্রিয় ছিল। সবাইকে নিয়ে বনানী চেয়ারম্যান বাড়ির মাঠে সে খেলা করতো। আর সে খেলা করবে না, বরং সবার থেকে বাদ আসর চিরবিদায় নেবে। সেই মাঠেই মিলন হবে, কিন্তু খেলার জন্য নয়, শেষ বিদায়ের জন্য। এর পর বনানীর গোরস্তানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবে জায়ান।

তাকে চিরবিদায় দিতে ইতিমধ্যে বনানী মাঠ ও আশপাশের এলাকায় উপস্থিত হয়েছেন বহু মানুষ। পুরো এলাকাজুড়ে পুলিশ, র‌্যাব, পিজিআরসহ বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রেখেছেন।

এর আগে দুপুর ১.৩০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় জায়ানের মরদেহ। এর পর সেখান থেকে মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সটি বনানীর দুই নম্বর রোডের ৯ নম্বর বাসায় এসে পৌঁছায়।

মরদেহের সঙ্গে শেখ সেলিমের স্ত্রী, পুত্র এবং জায়ানের দুই ভাই এসেছেন। তবে আহত স্বামী অর্থাৎ জায়ানের বাবা মশিউল হক চৌধুরীর সঙ্গে রয়ে গেছেন শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া (জায়ানের মা)।

উল্লেখ্য, গত রোববার শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলায় যে তিন শতাধিক লোক নিহত হয়েছে তার মধ্যে একজন জায়ান। সে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল হক সেলিমের নাতি।

এসইউজে/আরপি

আরও পড়ুন...
জায়ানে‌র মরদেহ দেখ‌তে আস‌ছেন প্রধানমন্ত্রী
যে হারানোর সান্ত্বনা নেই
শেষ যাত্রায় বনানীর ৯ নম্বর বাড়িতে জায়ান

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও