সিঙ্গেল ডিজিট সুদ হার কার্যকরের সুপারিশ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

সিঙ্গেল ডিজিট সুদ হার কার্যকরের সুপারিশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১০:০৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

সিঙ্গেল ডিজিট সুদ হার কার্যকরের সুপারিশ

সব ব্যাংককে সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার সিদ্ধান্ত কার্যকরের সুপারিশ করেছে এ সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

আগামী দুই মাসের মধ্যে এটি কার্যকরে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ ব্যাংককে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ। কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, নারায়ন চন্দ চন্দ্র, মাহবুবউল আলম হানিফ, মির্জা আজম, মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম ছাড়াও বাংলাদেশ বাংকের ডেপুটি গভর্নর, রাষ্ট্রায়ত্ত বিভিন্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ব্যাংক ঋণের সুদের হার একক সংখ্যায় (সিঙ্গেল ডিজিট) বাস্তবায়নের ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং তফসিলি ব্যাংকের গৃহীত কার্যকর ব্যবস্থার ওপর, রুগ্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান, বন্ধ ও অচল মিল করখানা সচল করার বিষয়ে ব্যাংকের গৃহীত পদক্ষেপ, অনাদায়ী/শ্রেণীকৃত ঋণ আদায়ে বাংলাদেশ ব্যাংক ও অন্যান্য রাষ্ট্রয়াত্ত ব্যাংকের গৃহীত ব্যবস্থা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

কমিটি একক সংখ্যায় ব্যাংক ঋণের সুদের হার বাস্তবায়নের ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক ও তফসিলি ব্যাংককে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে।

বৈঠকে উল্লেখ করা হয়, রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক ও বিশেষায়িত ব্যাংকসমূহের সুদ মওকুফের ক্ষেত্রে সরকার নীতিমালা জারি করেছে। ওই নীতিমালার ফলে অনেক রুগ্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান, বন্ধ ও অচল মিল কারখানা সুদ মওকুফ সুবিধা পেয়েছে। ফলে ওই সকল প্রতিষ্ঠানের অবশিষ্ট অনাদায়ী/শ্রেণীকৃত ঋণ আদায় সহজতর হয়েছে।

এতে বলা হয়, ব্যাংকসমূহ ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরোর (সিআইবি) মাধ্যমে খেলাপি গ্রাহকের তথ্য নিজেদের মধ্যে আদান-প্রদান করতে পারছে। ফলে এক ব্যাংকের খেলাপি গ্রাহক অন্য ব্যাংক হতে ঋণ গ্রহণ করতে পারছেন না।

রুগ্ন প্রতিষ্ঠান ৪১১, পোশাক কারখানা ২৭৯টি

সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বলা হয়, শিল্প মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত পোশাক শিল্পের ২৭৯টি এবং নন-টেক্সটাইল শিল্প খাতের দু’দফায় মোট ৪১১টি প্রতিষ্ঠানকে রুগ্ন শিল্প হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

বৈঠকে জানানো হয়, এসব শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য সুদ ভর্তুকিসহ নমনীয় পরিশোধসূচিতে ঋণ হিসাব অবসায়নে বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। এ প্যাকেজের আওতায় অধিকাংশ ঋণ হিসাব নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

এইচকে/আইএম