‘যুদ্ধাপরাধীরা যাতে আর ক্ষমতায় না আসে’

ঢাকা, ১৮ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

‘যুদ্ধাপরাধীরা যাতে আর ক্ষমতায় না আসে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৭:৪০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯

‘যুদ্ধাপরাধীরা যাতে আর ক্ষমতায় না আসে’

এই বাংলাদেশ মুজিবের। এখানে যেন কোনো দিন সন্ত্রাসী-জঙ্গিগোষ্ঠী, যুদ্ধাপরাধীরা ক্ষমতায় আসতে না পারে, সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতির পিতার ৯৯তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবসের আলোচনায় তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতার এই জন্মদিন থেকেই আমরা তাঁর জন্মশতবার্ষিকী পালনের প্রস্তুতি শুরু করব। আগামী বছর দিনটি জাঁকজমকভাবে পালন করা হবে। কারণ, তার নেতৃত্বে আমরা যুদ্ধ করে স্বাধীন দেশ পেয়েছি। আমরা একে তার স্বপ্নের ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তুলব।’

তিনি বলেন, ‘এদেশ মুজিবের বাংলাদেশ। এখানে যেন আর কোনো দিন সন্ত্রাসী, জঙ্গিগোষ্ঠী, যুদ্ধাপরাধী-মানবতাবিরোধীরা ক্ষমতায় না আসতে পারে, সবাইকে সেদিকে নজর রাখতে হবে।’

বাবার জন্মদিনের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার বাবা শেখ মুজিবুর রহমানের নানা শেখ আবদুল মজিদ। বাবা জন্ম নেয়ার পর তিনিই দাদিকে বলেছিলেন— তোমার ছেলের নাম শেখ মুজিবুর রহমান রাখলাম। এমন এক নাম রেখে দিলাম, এটি একদিন জগৎজোড়া হবে। বাবার নানার কথাই আজকে সত্যি, শেখ মুজিব নামটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘অজপাড়া গায়ের সেই শিশুটি স্কুল জীবন থেকে সাধারণ মানুষের কথা ভেবেছে। তার ভেতরে মানুষের প্রতি প্রেম-ভালোবাসা, মানুষের কল্যাণ করার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ পেতো। যেটা আমার দাদির কাছে গল্প শুনতাম। এমন বাবা-মা তিনি পেয়েছিলেন, যারা কোনো দিন তার কাজে অভিযোগ-অনুযোগ করেননি, উৎসাহ দিয়েছেন।’

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘বাবা যখন প্রধানমন্ত্রী হয়ে মায়ের কাছে গেছেন, তখনও তিনি ছোট্ট শিশু হয়েই গেছেন। দাদি বাবাকে খাইয়ে দিতেন, বাবাও খেতেন। আমরা এটা নিয়ে হাসিঠাট্টা করতাম। একজন একদিন তার বাবার কাছে অনুযোগ করেছেন, আপনার ছেলে এগুলো কি শুরু করেছে, সেতো জেলে যাবে। তখন তার বাবা জবাবে বললেন, সেতো এগুলো দেশের জন্য করছে। ভাত খেলে ঘরের ভাত খাবে, না হয় জেলের ভাত খাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমার মাকেও দেখেছি, কোনো দিন কোনো অভিযোগ-অনুযোগ করতেন না। সেই ছোট্ট শিশুটির নাম আজ বিশ্বে ছড়িয়ে। কারণ, তিনি একটি জাতিকে বন্দিদশা থেকে মুক্তি দিয়েছিলেন।’

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য আজমত উল্যাহ খান, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম প্রমুখ।

এসইউজে/আইএম

আরও পড়ুন...
‘নানার দেয়া নামই আজ জগৎজোড়া’

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও