পুরান ঢাকার পানি সরবরাহ লাইন নেটওয়ার্ক উন্নয়নে চীনা কোম্পানির সঙ্গে ওয়াসার চুক্তি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

পুরান ঢাকার পানি সরবরাহ লাইন নেটওয়ার্ক উন্নয়নে চীনা কোম্পানির সঙ্গে ওয়াসার চুক্তি

সচিবালয় প্রতিবেদেক ৪:৪৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০২, ২০১৮

পুরান ঢাকার পানি সরবরাহ লাইন নেটওয়ার্ক উন্নয়নে চীনা কোম্পানির সঙ্গে ওয়াসার চুক্তি

রাজধানীর পুরান ঢাকা ও তৎসংলগ্ন এলাকার ৫০ বছরের পুরনো পানি নিস্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নে চীনা কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে ঢাকা ওয়াসা।

রোববার সকালে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁও এ চীনা কোম্পানি ফাস্ট মেটালারজিক্যাল গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেডের সঙ্গে এ চুক্তি স্বাক্ষর করে ঢাকা ওয়াসা।

চুক্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা ওয়াসার ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রকৌশলী তাকসিম এ খান, বিশেষ অতিথি ছিলেন এডিবির বাংলাদেশ প্রেসিডেন্ট জাহির উদ্দিন, চীনা ফাস্ট মেটালারজিক্যাল গ্রুপ কোম্পানির প্রধান প্রতিনিধি মি. শাহ চাংহাই, ঢাকা ওয়াসার পরিচালক (উন্নয়ন) মো: আবুল কাশেম, ঢাকা ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী মো: কামরুল হাসান, ঢাকা ওয়াসার ডিরেক্টর প্রকৌশলী এ কে এম শাহিদ উদ্দিন প্রমুখ।

 

চুক্তি অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, নীলসাগর গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক আরমান হাবিব, ফাইন্যান্স ডিরেক্টর মাহাবুব আলম ও ঢাকা ওয়াসা স্বীকৃত চীনা ফাস্ট মেটালারজিক্যাল গ্রুপ কোম্পানির সাব কন্ট্রাক্টর এসএ ইঞ্জিনিয়ারিং এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রকৌশলী আতিক হোসেন রাব্বী। 

অনুষ্ঠানে ঢাকা ওয়াসার ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রকৌশলী তাকসিম বলেন, জনসংখ্যার বিচারে ব্রাজিলের বৃহত্তম শহর সাও পাওলোর পরে পানি সরবরাহের দিক থেকে ঢাকা শহর অন্যতম অবস্থানে রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা রেখেছে ঢাকা ওয়াসা। ২০০৯ সালে ঢাকা ওয়াসার ৪০ শতাংশ পানি অপচয় হতো। ফলে সে সময় সাধারণ নগরবাসী পানি পেত না। কিন্তু আজ শেখ হাসিনার সরকার গঠনের পর থেকে বর্তমানে ঢাকা শহরের মানুষ পরিচ্ছন্ন পানি পাচ্ছে। আমাদেরকে এ অর্জন ধরে রাখতে হবে।


 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশে নিয়োজিত এডিবি প্রেসিডেন্ট জাহির উদ্দিন বলেন, ২০০০ সালে ঢাকা ওয়াসার পানির ক্রাইসিস ছিল। তারপর থেকে আস্তে আস্তে ক্রমশই এ পরিস্থিতি উন্নতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। আর ২০০৯ সাল থেকে ওয়াসার বর্তমান নেতৃত্ব দায়িত্বে আসার পর দিন দিন উন্নতি করছে। 

ঢাকা ওয়াসার আরেক ডিরেক্টর প্রকৌশলী আবুল কাশেম বলেন, সাউথ এশিয়ার মধ্যে ঢাকা ওয়াসার সার্ভিস সবচেয়ে ভালো। এই চুক্তির মাধ্যমে আমরা আরও ভালো কিছু পাবো। আমরা আশা করবো কাজের কোয়ালিটিতে চায়না কোম্পানি কোনরকম কম্প্রোমাইস করবে না। আমরা বরাবরই কোয়ান্টিটির চেয়ে কোয়ালিটিকে বেশি গুরুত্ব দেই।

 

‘ঢাকা ওয়াসা তার মান বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আমরা কোয়ানটিটির সঙ্গে কোয়ালিটিরও গুরুত্ব দিয়ে থাকি। চায়না কোম্পানিকে বলতে চাই আপনারা এ কাজে কোয়ালিটির দিকে বেশি গুরুত্ব দিবেন। তবে প্রকল্প বাস্তবায়নে যেন বেশি দেরি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।’

চীনা ফাস্ট মেটালারজিক্যাল গ্রুপ কোম্পানির প্রধান প্রতিনিধি মি. শাহ চাংহাই ঢাকা ওয়াসার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ঢাকা ওয়াসা অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আগামীতেও তাদের দক্ষতাবলে দেশের জনগণকে ভাল সেবা দিতে পারবে।


ঢাকা ওয়াসার পরিচালক (উন্নয়ন) মো: আবুল কাশেম তার বক্তব্যে বলেন, আমরা বর্তমানে ঢাকাবাসীকে ২৪ ঘন্টা পানি সরবরাহ করতে পারছি। প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি সংরক্ষণ করছি। সরকারের তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জোনায়েদ আহমেদ পলকের ঢাকা ওয়াসা নিয়ে দেওয়া এক বক্তব্যের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, প্রতিমন্ত্রী বলেছেন ঢাকা ওয়াসা, ঢাকা ওয়াসা নয় এটা ‘ডি ওয়াসা’ অর্থ্যাৎ ডিজিটাল ওয়াসা।

পুরাতুন ঢাকার জোন-২ এর আওতায় লালবাগ এলাকার পানি ব্যবস্থা উন্নয়নে ব্যয়ের ৮৪ শতাংশ অর্থ প্রদান করবে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)এবং বাকী ১৬ শতাংশ ব্যয় বহন করবে বাংলাদেশ সরকার।

এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ উপকৃত হবে বলে জানান বক্তারা।

এসএস-টিএটি/