৩ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫

৩ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৮

৩ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

সিলেট, টেকনাফ ও মুন্সিগঞ্জে র‌্যাব ও পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার রাত ও বুধবার ভোরে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন:

সিলেট: সিলেটে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শহীদ মিয়া নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার থানার শ্রীরামপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব জানায়, মাদক বেচাকেনার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শ্রীরামপুর এলাকায় অভিযান চালায় র‌্যাব।  র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে মাদক ব্যবসায়ীরা। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটে।

ঘটনাস্থল থেকে শহীদ নামের একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে র‌্যাব। এ ছাড়া একটি বিদেশি পিস্তল ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে র‌্যাব।

র‌্যাবের তথ্য অনুযায়ী শহীদ মিয়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক সম্রাট। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, সাবরাং কচুনিয়ার আবদুর রহিমের ছেলে নজির আহমদ প্রকাশ ওরফে নজির ডাকাত (৩৮) এবং হ্নীলা জাদিমোরা নয়াপাড়ার আমির হামজার ছেলে আবদুল আমিন (৩৫)।

পুলিশের দাবি, বন্দুকযুদ্ধের সময় ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ৪টি দেশীয় অস্ত্র, ২১ রাউন্ড গুলি, ১০ হাজার ১৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার ভোররাতে সাবরাং ট্যুরিস্টজিয়ম পার্কসংলগ্ন বেড়িবাঁধ এলাকায় ইয়াবা ব্যবসায়ী নজির আহম্মদের স্বীকারোক্তিতে তার আস্তানায় ইয়াবা উদ্ধারে অভিযানে গেলে তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করে।

এ সময় পুলিশের এসআই খাইরুল আলম (৩৮), কনস্টেবল রুমন (৩৪), মংছিং প্রয় (৩৮) ও আবদুস শুক্কুর (২২) আহত হন। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলিবর্ষণ করলে তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ জানান, পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, আদম পাচার, মাদকসহ নানা অপরাধের ৫টি মামলা রয়েছে।

লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

মুন্সিগঞ্জ: মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ১৮ মামলার আসামি আবুল হোসেন (৫০) নিহত হয়েছেন। বুধবার ভোর ৪টার দিকে টঙ্গীবাড়ি উপজেলার সোনারং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জের উপ-পরিচালক মেজর আশিক বিল্লাহ জানান, ভোর ৪টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করতে টঙ্গীবাড়ি সোনারং যায়। সোনারং মেইন রোডের পাশে আবুল হোসেন তার বাহিনীর ৪-৫ জন সদস্য নিয়ে মিটিং করছিলেন।

তারা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছুড়লে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এ ঘটনায় আবুল হোসেনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় টঙ্গীবাড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

মরদেহ টঙ্গীবাড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রাখা হয়েছে। এতে র‌্যাবের ২ সদস্য আহত হন।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগজিন, ৫০০ পিস ইয়াবা, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

এমএ

আরও পড়ুন...
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত