মিলাদুন্নবী কি সীরাত আলোচনার অনুষ্ঠান?

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১১ বৈশাখ ১৪২৬

মিলাদুন্নবী কি সীরাত আলোচনার অনুষ্ঠান?

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৫৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৮

মিলাদুন্নবী কি সীরাত আলোচনার অনুষ্ঠান?

ঈদে মিলাদুন্নবী তথা নবীজি (সা.) এর জন্মোৎসব পালন একটি বিদআতী কাজ। তবে যারা এ অনুষ্ঠান উদযাপন করেন, তারা এর বৈধতা দেখানোর জন্য একটি কথা বলে থাকেন, “মিলাদুন্নবী উদযাপন এবং এ উপলক্ষে নবীজী (সা.) এর সীরাত আলোচনার দ্বারা মানুষকে নবীজির পদাঙ্ক অনুসরণের আহবান জানানোই উদ্দেশ্য।” তাদের এ কথা ও দাবী ঠিক নয়।

সঠিক কথা হল, নবীজী (সা.) এর সীরাত অধ্যয়ন করা এবং তাঁর আদর্শ অনুসরণ করা একজন মুসলিমের সার্বক্ষণিক কর্তব্য, গোটা জীবন ধরে এবং সারা বছরই তাকে তা করতে হবে। এই কাজের জন্য একটি বিশেষ দিনকে বেছে নেয়া, যার পক্ষে কোন দলীল নেই – তা বিদআত, আর “প্রতিটি বিদআতই পথভ্রষ্টতা।” (আহমদ, তিরমিযী) বিদআতের ফসল কেবলই মন্দ, আর এর দ্বারা একজন ব্যক্তি নবীজী (সা.) থেকে দূরে সরে যায়।

মিলাদুন্নবী উদযাপন – তা যে পন্থায়ই হোক না কেন, এটি একটি তিরস্কারযোগ্য নব উদ্ভাবন। মুসলিমদের কর্তব্য এটি সহ অন্যান্য সকল বিদআতের অবসান ঘটানো এবং সুন্নাতকে পুনরুজ্জীবিত করা।

নবীজি (সা.) বলেন,

« مَنْ أَحْدَثَ فِى أَمْرِنَا هَذَا مَا لَيْسَ فِيهِ فَهُوَ رَدٌّ »

‘আমাদের এই দ্বীনের মাঝে যে নতুন কিছু উদ্ভাবন করবে, তা প্রত্যাখ্যাত হবে।’ -সহীহ বুখারী

তিনি আরও বলেন,

وَإِيَّاكُمْ وَمُحْدَثَاتِ الأُمُورِ فَإِنَّهَا ضَلاَلَةٌ فَمَنْ أَدْرَكَ ذَلِكَ مِنْكُمْ فَعَلَيْهِ بِسُنَّتِى وَسُنَّةِ الْخُلَفَاءِ الرَّاشِدِينَ الْمَهْدِيِّينَ عَضُّوا عَلَيْهَا بِالنَّوَاجِذِ »

‘তোমরা আমার সুন্নাত এবং আমার পরবর্তী খোলাফায়ে রাশেদীনের সুন্নাত পালন করবে। আর তা দৃঢ়তার সাথে ধারণ করবে। সাবধান! তোমরা দ্বীনের মধ্যে নতুন বিষয় আবিষ্কার করা থেকে বিরত থাকবে। কারণ, প্রত্যেক নবপ্রবর্তিত বিষয়ই বিদআত এবং প্রত্যেক বিদআতই ভ্রষ্টতা।’ (তিরমিযী, অনুচ্ছেদ: সুন্নত গ্রহণ, ইমাম তিরমিযী বলেন, হাদীসটি হাসান সহীহ)

এমএফ/

আরও পড়ুন...
ঈদে মিলাদুন্নবী: নবীপ্রেম না অবাধ্যতা
‘ঈদে মিলাদুন্নবী : নবীজিকে শ্রদ্ধা প্রদর্শন নাকি বিদআত?
অত্যাসন্ন ১২ রবিউল আউয়াল; ঈদে মিলাদুন্নবী বিদআত কেন?
সীরাতুন্নবী ও মিলাদুন্নবী : পার্থক্য ও সংশ্লিষ্ট কথা
ঈদে মিলাদুন্নবী বিদআতে হাসানা, একটি ভ্রান্ত কথা