আমেরিকায় যাওয়ার ব্যাখ্যা দিলেন মাহবুব তালুকদার

ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫

আমেরিকায় যাওয়ার ব্যাখ্যা দিলেন মাহবুব তালুকদার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৪:৪২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০১৮

আমেরিকায় যাওয়ার ব্যাখ্যা দিলেন মাহবুব তালুকদার

সহকর্মীদের ওপর বাক স্বাধীনতা ‘কেড়ে নেওয়ার’ অভিযোগ তুলে কমিশন সভা বর্জন করা নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার হঠাৎ করেই আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আগামী ২০ অক্টোবর থেকে ১০ দিন সেখানে অবস্থান করবেন।

হঠাৎ তার আমেরিকা যাওয়া নিয়ে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

তাই এ বিদেশ সফর নিয়ে কথা বলেছেন এ নির্বাচন কমিশনার।

আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনের নিজ কার্যালয়ে বুধবার দুপুরে বিদেশ যাওয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা দেন তিনি।

মাহবুব তালুকদার বলেন, আমার ছেলে কানাডা থেকে আমেরিকায় আসবে। আমি ঢাকা থেকে আমার মেয়েকে নিয়ে যাচ্ছি, আমার ভাইও সেখানে আসবে। পরিবারের সবাই সেখানে একত্রিত হব। একমাস আগেই আমি টিকেট কেটে রেখেছি।

তফসিল ঘোষণার আগেই দেশে ফিরবেন জানিয়ে এই নির্বাচন কমিশার বলেন, আমি তফসিলের আগেই চলে আসব। সে জন্যই আমি এই সময়ে যাচ্ছি।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎটা মিস করব। তবে দেশে এসে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আবার দেখা করার চেষ্টা করব।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের দিনও দেখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে তফসিল ঘোষণার আগে আগামী সপ্তাহে আরেকটি কমিশন সভা করবে নির্বাচন কমিশন। এই বৈঠকে তফসিলের তারিখ চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে। সে সময়ও দেশের বাইরে থাকবেন মাহবুব তালুকদার। ফলে সভায় অংশ নিতে পারছেন না এই নির্বাচন কমিশনার।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাহবুব তালুকদার বলেন, সে সময়তো আমি দেশের বাইরে থাকব। এটা কোনো বিষয় নয়।

ইসির কর্মকর্তারা জানান, ব্যক্তিগত সফরে যুক্তরাস্ট্রে মেয়ের কাছে যাবেন মাহবুব তালুকদার। ইতোমধ্যে নিয়ম অনুযায়ী যথাযথ দফতরকে চিঠি দিয়ে তার পক্ষ থেকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। সফর শেষে আগামী ৩১ অক্টোবর তিনি দেশে ফিরবেন।

এর আগে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কিত কমিশন সভায় চলাকালেই ‘নোট অব ডিসেন্ট’ দিয়ে সভা বর্জন করেন নির্বাচন কমিশনার কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

১৫ অক্টোবর বেলা ১১টায় নির্বাচন ভবনে এই সভা শুরু হয়।

সভা শুরুর ১০ মিনিটের মাথায় সভাকক্ষ থেকে বেরিয়ে আসেন মাহবুব তালুকদার।

তবে বাকি তিন নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরীকে নিয়ে বৈঠক চালিয়ে যান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

এর আগে গত ৩০ আগস্ট ইসির ৩৫তম সভাও বর্জন করেন তিনি।

ওই সভায় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করার জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) সংশোধনী আনা হয়। তবে সেই সংশোধনীতে ‘নোট অব ডিসেন্ট’ দিয়ে সভা বর্জন করেন এ কমিশনার। 

এইচকে/এসবি