র‌্যাফট খুলে পড়ায় অর্ধশত যাত্রী কম বহন করবে আকাশবীণা

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

র‌্যাফট খুলে পড়ায় অর্ধশত যাত্রী কম বহন করবে আকাশবীণা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:২২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

র‌্যাফট খুলে পড়ায় অর্ধশত যাত্রী কম বহন করবে আকাশবীণা

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণার সামনের একটি ইমার্জেন্সি এক্সিট ডোরের র‌্যাফট খুলে পড়ে গত মঙ্গলবার। এঘটনার পর বিমানের ফ্লাইট পরিচালনা অব্যাহত থাকলেও যাত্রীদের নিরাপত্তা বিবেচনায় র‌্যাফট রিপ্লেস করার আগ পর্যন্ত আকাশবীণাকে অর্ধশত যাত্রী কম পরিবহন করতে হবে।

এদিকে র‌্যাফট খুলে পড়ার ঘটনায় বিমানের প্রকৌশল বিভাগের একজনকে সাময়িক বরখাস্ত করে শোকজ করা হয়েছে বলে বিমান সূত্রে জানা গেছ। 

বিমান সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে মালয়েশিয়া থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকায় ফেরে আকাশবীণা। যাত্রী নেমে যাওয়ার পর নিয়মিত গ্রাউন্ড চেকের অংশ হিসেবে বিমানের প্রকৌশল বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

সিঙ্গাপুর ফ্লাইটের আগে বিএফসিসি’র খাবারের গাড়ি আসলে দরজা খোলার সময় বিমানের প্রকৌশল বিভাগের স্টাফ মোস্তাফিজুর রহমান র‌্যাফটি খুলে ফেলেন। পরবর্তীতে র‌্যাফটি বিমানের প্রকৌশল বিভাগে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

এঘটনায় ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরের বিজি-৮৪ ফ্লাইটটি ছাড়ার নির্ধারিত সময় ৮টা ২৫ মিনিট থাকলেও ফ্লাইটটি ঢাকা ছাড়ে ৯টার দিকে। তখন র‌্যাফট ছাড়াই ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেয় বিমানের প্রকৌশল বিভাগ। 

জানা গেছে, জরুরি অবস্থায় যাত্রীদের বিমান থেকে বের হওয়ার জন্য দরজার সঙ্গে থাকে এই র‌্যাফট। এটার মাধ্যমে যাত্রীরা বিমান থেকে দ্রুত বের হয়ে যেতে পারেন। আকাশবীণার একটি ইমার্জেন্সি দরজা দিয়ে ৫৫ জন যাত্রী বের হতে পারেন। চারটি  ইমার্জেন্সি এক্সিট ডোরের একটির র‌্যাফট না থাকায় ৫৫ জন যাত্রী কম নিয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করতে হচ্ছে বিমানকে। 

এ প্রসঙ্গে বিমানের মহাব্যবস্থাপক শাকিল মেরাজ পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘র‌্যাফটি খুলে পড়ার ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এঘটনায় কারো বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ 

প্রসঙ্গত, গত ৫ সেপ্টেম্বর  ড্রিমলাইনার আকাশবীণার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উড়োজাহাজটির আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি, আর ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস। আকাশবীণা দিয়ে প্রাথমিকভাবে ঢাকা-সিঙ্গাপুর- ঢাকা ও ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে। 

টিএটি/এমএসআই