নেপালে হতাহতদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করবেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

নেপালে হতাহতদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করবেন প্রধানমন্ত্রী

ফররুখ বাবু ৬:২৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০১৮

নেপালে হতাহতদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করবেন প্রধানমন্ত্রী

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত এবং আহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে শিগগিরই দেখা করবেন।

নেপাল থেকে ২৩ জনের মরদেহ আনার পর আর্মি স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ইউএস বাংলা কোনো আর্থিক সহায়তা দেবে কিনা সেটা তাদের ব্যপার। তবে প্রধানমন্ত্রী যার যা প্রয়োজন তাই দিয়ে সহায়তা করবেন।

তিনি আরো জানান, অতি দ্রুত বাকি তিন মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে নিয়ে আসা হবে। এটা একটু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার।

উল্লেখ্য, বিকেল ৪টা ৫মিনিটে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি বিশেষ ফ্লাইটে নিহত ২৩ জনের মরদেহ ঢাকায় আনা হয়। সেখান থেকে ৪টা ৪৫ মিনিটে মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সগুলো নেয়া হয় আর্মি স্টেডিয়াম।

এই ২৩ জনের মধ্যে পাইলট আবিদ সুলতান, কো-পাইলট পৃথূলা রশীদ এবং কেবিন ক্রু খাজা হোসেন মো. শফি ও শারমিন আক্তার নাবিলা রয়েছেন।

আর যাত্রীদের মধ্যে ফয়সাল আহমেদ, বিলকিস আরা, বেগম হুরুন নাহার বিলকিস বানু, আখতারা বেগম, নাজিয়া আফরিন চৌধুরী, রকিবুল হাসান, হাসান ইমাম, আঁখি মনি, মিনহাজ বিন নাসির, ফারুক হোসেন প্রিয়ক, তার মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী তামারা, মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহিরা তানভিন শশী রেজা, বেগম উম্মে সালমা, মো. নুরুজ্জামান, রফিক জামান, তার স্ত্রী সানজিদা হক বিপাশা, তাদের ছেলে অনিরুদ্ধ জামানের মরদেহ রয়েছে।

গত ১২ মার্চ ৬৭ জন যাত্রী ও চার ক্রু নিয়ে বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজটি। এতে মারা যান ৫১ জন। বিমানে বাংলাদেশি নাগরিক ছিলেন ৩৬ জন। তাদের মধ্যে ২৬ জন নিহত হন যাদের ২৩ জনের মরদেহ শনাক্ত করা হয়েছে।

এফবি/এএসটি

আরো পড়ুন...
দেশের পথে প্রিয় মুখগুলোর নিথর দেহ
জানাজার জন্য প্রস্তুত আর্মি স্টেডিয়াম
জানাজা শেষে দেশে ফিরছে ২৩ লাশ
২৩ বাংলাদেশির জানাজায় থাকবেন প্রধানমন্ত্রী

শাহজালালে ২৩ কফিন, সারিবদ্ধ অ্যাম্বুলেন্স (ভিডিও)
আর্মি স্টেডিয়ামে পৌঁছেছে ২৩ মরদেহ (ভিডিও)
জানাজা শেষে প্রিয়জনের কফিন নিয়ে ফিরল স্বজনরা