জানাজার জন্য প্রস্তুত আর্মি স্টেডিয়াম

ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮ | ৩ ভাদ্র ১৪২৫

জানাজার জন্য প্রস্তুত আর্মি স্টেডিয়াম

ফররুখ বাবু ২:১৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০১৮

print
জানাজার জন্য প্রস্তুত আর্মি স্টেডিয়াম

নেপালে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ২৩ বাংলাদেশির নামাজে জানাজার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে আর্মি স্টেডিয়াম। সোমবার সকাল থেকে লাশবাহী কফিন রাখার জন্য আলাদা জায়গা সাজানো হয়েছে। তাতে তাজা ফুল রাখা হয়েছে। জানাজায় শরিক হওয়ার জন্য স্টেডিয়ামের ভেতরে সাদা চুন দিয়ে লাইন করা হয়েছে।

সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ইতোমধ্যে জানাজার জন্য ৯৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মরদেহে শ্রদ্ধা জানাতে আসবেন, এজন্য স্টেডিয়াম ও এর আশপাশের এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সেনাবাহিনী ডগ স্কোয়াড দিয়ে গোটা স্টেডিয়ামের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছে।

জানা গেছে, নেপাল থেকে ২৩ জনের লাশ সোমবার বিকেল তিনটার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছবে। সেখানকার আনুষ্ঠানিকতা শেষে লাশগুলো আর্মি স্টেডিয়ামে নেয়া হবে।

সেখানে তাদের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে উপস্থিত হয়ে মরদেহে শ্রদ্ধা জানাবেন বলে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) থেকে জানানো হয়েছে।

তবে জানাজার প্রস্তুতির দায়িত্বে থাকা সেনা কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের জানান, নেপাল থেকে লাশগুলো একটু পরে রওনা হবে। এজন্য হয়তো জানাজাও কিছুটা বিলম্বে হবে। আগে বিকেল চারটা বলা হলেও হয়তো পাঁচটা নাগাদ জানাজা হবে বলে তারা জানান।

এর আগে সকালে কাঠমান্ডুতে বাংলাদেশ দূতাবাসে ২৩ বাংলাদেশির প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। নিহতদের স্বজন ছাড়াও সাংবাদিক, দূতাবাস ও এয়ারলাইন্সের কর্মকর্তারা জানাজায় শরিক হন। এ সময় নেপাল সরকারের ঊর্ধ্বতন প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

ইউএস-বাংলার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম জানান, আর্মি স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে পরিবারের কাছে লাশগুলো হস্তান্তর করা হবে।

যেসব বাংলাদেশির লাশ ফিরছে, তারা হলেন- ইউএস-বাংলা উড়োজাহাজের পাইলট ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতান, কো-পাইলট পৃথুলা রশীদ, কেবিন ক্রু খাজা সাইফুল্লাহ, কেবিন ক্রু শারমিন আক্তার নাবিলা, যাত্রী অনিরুদ্ধ জামান, তাহিরা তানভীন শশী, উম্মে সালমা, মিনহাজ বিন নাসির, রাকিবুল হাসান, মতিউর রহমান, রফিক উজ জামান, এফএইচ প্রিয়ক, আখি মনি, তামারা প্রিয়ন্ময়ী, আকতার বেগম, হাসান ইমাম, এসএম মাহমুদুর রহমান, ফয়সাল আহমেদ, সানজিদা হক, বিলকিস আরা, নাজিয়া আফরিন চৌধুরী, বেগম হারুন নাহার বিলকিস বানু ও মো. নুরুজ্জামান।

নিহত ২৬ জনের মধ্যে যে তিনজনের লাশ সনাক্ত করা যায়নি। তারা হলেন- আলিফউজ্জামান, মো. নজরুল ইসলাম ও পিয়াস রয়।

উল্লেখ্য, ঢাকা থেকে ৭১ আরোহী নিয়ে গত ১২ মার্চ দুপুরে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে নামার সময় ইউএস-বাংলার ফ্লাইট বিএস-২১১ রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়। এতে বিমানের ৫১ আরোহী নিহত হন। উড়োজাহাজে চার ক্রুসহ ৩৬ বাংলাদেশি ছিলেন। এদের ২৬ জনই নিহত হয়েছেন।

এফবি/আইএম

আরো পড়ুন...
জানাজা শেষে দেশে ফিরছে ২৩ লাশ
২৩ বাংলাদেশির জানাজায় থাকবেন প্রধানমন্ত্রী

 
.


আলোচিত সংবাদ