‘মা জানেন না ছেলে মতিউর আর পৃথিবীতে নেই’ 

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫

‘মা জানেন না ছেলে মতিউর আর পৃথিবীতে নেই’ 

সৈয়দ অদিত ১০:৪৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৮

‘মা জানেন না ছেলে মতিউর আর পৃথিবীতে নেই’ 

পরিবারের পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিলেন মতিউর। তাই ভাই-বোনদের মধ্যে সব থেকে বেশি আদরও পেতেন তিনি। পরিবারকে মতিউর জানিয়েছিলেন- নেপাল থেকে ফিরে এসে তার চাকরিতে প্রমোশন হবে। কিন্তু নেপাল থেকেই জীবিত ফেরা হবে না তার। নেপালে প্লেন বিধ্বস্তের ঘটনায় সবকিছু ভেঙে চুরমার হয়ে গেলো।

সোমবার নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারওয়েজে নিহত ২৬ বাংলাদেশি যাত্রীর মধ্যে একজন মতিউর রহমান পলাশ। ফেনী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে ইলেক্ট্রিকেল বিষয়ে ডিপ্লোমা করেছিলেন। তিনি ফেনীর বগাদানা ইউনিয়নের আউরারখিল গ্রামের মৃত মো. আমিন উল্লাহ মিয়ার ছেলে।

পলাশের বড় ভাই মোস্তাফিজুর রহমান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, মতিউর গতবছর রানার অটোমোবাইলে সহকারী ম্যানেজার হিসেবে যোগ দেয়। নেপাল যাওয়ার আগে সে আমাদের জানিয়েছিল নেপাল থেকে ফিরে তার চাকরিতে পদোন্নতি হবে। তার সাথে আরো দুজন রানারের কর্মী নেপাল গিয়েছিল। তাদের আগামী ১৭ মার্চ দেশে ফিরে আসার কথা ছিল।

ভাইয়ের স্মৃতিচারণ করে মোস্তাফিজ জানান, পরিবারে সবার থেকে বেশি আদর পেতো মতিউর। আমাদের সাপ্তাহিক বন্ধের দিন যখন বাসায় থাকতাম তখন আমরা একসাথেই মজা মাস্তি করতাম। সময় পেলে ঘুরতেও যেতাম। আমাদের দুই ভাইয়ের মধ্যে যে আত্মার মিল ছিল তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। আমরা এক বিছানাতেই দুজন একসাথে ঘুমাতাম, এই কথা বলতেই হাউমাউ করে কেঁদে উঠেন মোস্তাফিজ।

তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, বাসায় কথা হয়েছিল নেপাল থেকে ফিরে এসে তার বিয়ের ব্যাপারে কথা বলবে। আমরা পারিবারিকভাবে মেয়েকেও ঠিক করে রেখেছি। মুহূর্তের মধ্যে সব স্বপ্ন চুরমার হয়ে গেল। প্রিয় ছোট ভাই আমার! আমার মনকেও এখনো বিশ্বাস করাতে পারছি না। সে এভাবে আমাদের একা ফেলে চলে যাবে ভাবতেও পারিনি।

মতিউরের বড় ভাই বলেন, তার মারা যাওয়ার বিষয়টি আম্মাকে এখনো জানানো হয়নি। উনার বয়স হয়ে গেছে। কিন্তু না বলে আর কতক্ষণ, জানাতে তো হবেই।

মাকে সান্ত্বনা দেয়ার জন্য তিন বোনকে আজকে ফেণীতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলে পরিবর্তন ডটকমকে জানিয়েছেন তিনি।

আজ নেপালে পরিবার থেকে কে গিয়েছেন জানতে চাইলে তিনি পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আমার ভিসার সমস্যা থাকায় আমি যেতে পারিনি। আমার বদলে আমার ভাগিনা গেছে। তাদের সাথে রানার অটোমোবাইলের তিনজন কর্মকর্তাও গেছেন।

লাশ খুঁজে পাওয়ার ব্যাপারে তিনি জানান, ভাগিনা লাশ খুঁজে পেয়েছে বলে আমাকে জানিয়েছে। তবে তাঁরা এখনো লাশ দেখতে দিচ্ছে না। তারা জানিয়েছে দেশে ফিরে আনার পর লাশ দেখতে।

এসও/এএল

আরো পড়ুন...
বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রী রুয়েটের শিক্ষিকা, স্বামী হাসপাতালে
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, বহু হতাহতের আশঙ্কা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা ফ্লাইটে আগুন
যান্ত্রিক ক্রুটিতেই ইউএস বাংলা বিমান দুর্ঘটনা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৭
বিধ্বস্ত বিমানের ৩৮ আরোহী নিহত: এএফপি
প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্তের মুহূর্ত
বিধ্বস্ত বিমানে ছিলেন রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অনেক শিক্ষার্থী
বিমানের জানালা ভেঙে প্রাণে বাঁচলেন যে যাত্রী
‘মা জেনে যাবে, তাই বাসার ডিশ লাইন কেটে দিয়েছি’
‘মানুষ পুড়ছে, আর্তনাদের সঙ্গে সঙ্গে মেঝেতে পড়ে যাচ্ছিল’
‘পাসপোর্ট নিতে ভুলে গিয়েছিল রিমন, আমি দিয়ে আসি’ (ভিডিও)
নিহত নাবিলার মেয়ের খোঁজ পেয়েছে পুলিশ
নিহত কেবিন ক্রু নাবিলার শিশুকন্যাকে নিয়ে টানাটানি
নাবিলার মৃত্যুর সংবাদ শুনেই মেয়েকে নিয়ে পালিয়েছে বুয়া
নাবিলার মেয়ে হিয়া এখন পুলিশের কাছে
দুই পরিবারে দ্বন্দ্ব, কার কাছে থাকবে নাবিলার ‘ইয়া পাখি’?
বাংলাদেশি ৩৬ জনের মধ্যে ২৬ জন নিহত
লাশ ফিরবে এক সপ্তাহ পর, বেশিরভাগই ঝলসানো