বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলার রায় ১ ডিসেম্বর

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলার রায় ১ ডিসেম্বর

আদালত প্রতিবেদক ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলার রায় ১ ডিসেম্বর

বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলায় রায় ঘোষণার জন্য আগামী ১ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের তারিখ ঠিক করেন।

এর আগে রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ করে।

আসামিরা হলেন— জাবালে নূর পরিবহনের বাসচালক মাসুম বিল্লাহ ও মো. জোবায়ের সুমন, চালকের সহকারী মো. এনায়েত হোসেন, বাস মালিক মো. জাহাঙ্গীর আলম ও মো. আসাদ কাজী।

আসামিদের মধ্যে মো. আসাদ কাজী পলাতক রয়েছে। অপর চার আসামি কারাগারে রয়েছে। গত ৭ অক্টোবর কারাগারে থাকা চার আসামি নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন।

মামলার আরেক আসামি জাবালে নূর পরিবহনের বাস মালিক মো. শাহদাত হোসেন আকন্দের অংশের বিচারিক কার্যক্রম হাইকোর্টের নির্দেশে স্থগিত রয়েছে।

এর আগে মামলাটিতে ৪১ জন সাক্ষীর মধ্যে ৩৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।

গত বছর ৬ সেপ্টেম্বর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উত্তর ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিমের পরিদর্শক কাজী শরীফুল ইসলাম ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিট বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ২৭৯, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৪ ও ৩৪ ধারায় দাখিল করা হয়েছে। ৩০৪ ধারা অনুযায়ী, খুন বলে গণ্য নয়, এরূপ নরহত্যার সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

গত ২২ অক্টোবর চার্জশিট গ্রহণ করেন আদালত। এরপর ২৫ অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করেন আদালত।

গত বছরের ২৯ জুলাই দুপুরে কালশী ফ্লাইওভার থেকে নামার মুখে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে ১৫/২০ জন শিক্ষার্থী দাঁড়িয়ে ছিলেন। জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস শিক্ষার্থীদের ওপর ওঠে যায়। এতে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান দুইজন। এ ঘটনায় সেই আলোচিত নিরাপদ সড়ক আন্দোলন শুরু হলে এক পর্যায়ে পুরো ঢাকা এবং দেশের অনেক এলাকার সড়ক শিক্ষার্থীদের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়।

এ ঘটনায় ২৯ জুলাই রাতে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম মামলাটি দায়ের করেন।

এমআই/এসবি

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও