অভিজিৎ হত্যা: মেজর জিয়াকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির নির্দেশ

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অভিজিৎ হত্যা: মেজর জিয়াকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির নির্দেশ

আদালত প্রতিবেদক ৫:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৯

অভিজিৎ হত্যা: মেজর জিয়াকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির নির্দেশ

লেখক ও মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ রায় হত্যা মামলায় সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্ত হওয়া পলাতক মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক জিয়াসহ দুইজনকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার জন্য আদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

রোববার ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ আদেশ দেন।

একই সাথে আগামী ১ আগস্ট পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেছেন।

অপর আসামি হলেন- আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুল্লাহ।

এর আগে, গত ১১ এপ্রিল ছয় আসামির বিরুদ্ধে একই আদালত চার্জশিট গ্রহণ করেন। গত ১২ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোজিম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের পরিদর্শক মো. মনিরুল ইসলাম ছয়জনকে অভিযুক্ত করে সিএমএম আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ওই সময় তিনি ১৫ জনের অব্যাহতির আবেদন জানান।

চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন— সাবেক মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন (সাংগঠনিক নাম শাহরিয়ার), আবু সিদ্দিক সোহেল (সাংগঠনিক নাম সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, আরাফাত রহমান (সাংগঠনিক নাম সিয়াম ওরফে সাজ্জাদ ওরফে শামস), শফিউর রহমান ফারাবি ও আকরাম হোসেন ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে হাসিবুল ওরফে আব্দুল্লাহ।

এদের মধ্যে মেজর জিয়াউল হক ও আকরাম হোসেন পলাতক।

মামলায় অভিজিতের স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাসহ ৩৪ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে বের হওয়ার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় ব্লগার অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ। ওই ঘটনায় অভিজিতের বাবা অধ্যাপক ড. অজয় রায় শাহবাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এমআই/এসবি

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও