আবরার নিহত: সু-প্রভাতের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

ঢাকা, ৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

আবরার নিহত: সু-প্রভাতের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

আদালত প্রতিবেদক ৬:৫৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

আবরার নিহত: সু-প্রভাতের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার

আহাম্মেদ চৌধুরী নিহতের মামলায় সু-প্রভাত বাসের মালিকসহ দুইজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেছে পুলিশ।

এছাড়া আবরারকে চাপা দিয়ে নিহতের আগে মিরপুর আইডিয়াল ল্যাবরেটরি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী সিনথিয়া সুলতানা মুক্তা বাসচাপায় গুরুতর আহত হওয়ার ঘটনায় আরো চারজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিমের পরিদর্শক কাজী শরীফুল ইসলাম গত ২১ এপ্রিল চার্জশিট দুটি জমা দেন।

তবে বৃহস্পতিবার চার্জশিটের বিষয়টি জানা গেছে।

আবরার নিহতের মামলায় চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন— সু-প্রভাতের মালিক ননী গোপাল সরকার এবং কন্ডাক্টর ইয়াছিন আরাফাত। সু-প্রভাতের চালক সিরাজুল ইসলাম ওরফে মিরাজ এবং হেলপার ইব্রাহীম হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের অব্যাহতির আবেদন করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা। মুক্তাকে বাসচাপায় গুরুতর আহত হওয়ার ঘটনায় চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন— ননী গোপাল সরকার, কন্ডাক্টর ইয়াছিন আরাফাত, চালক সিরাজুল ইসলাম ওরফে মিরাজ এবং হেলপার ইব্রাহীম হোসেন। এ চার আসামিই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। তারা বর্তমানে কারাগারে।

উল্লেখ্য, ১৯ মার্চ সকাল ৭টার দিকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন প্রগতি সরণি এলাকায় সু-প্রভাত (ঢাকা-মেট্রো-ব-১১-৪১৩৫) বাসের চাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হন।

মামলার বিবরণে বলা হয়, বাসটির চালক বেপরোয়া ও দ্রুতগতিতে বাড্ডার দিকে থেকে প্রগতি সরণি রোড দিয়ে কুড়িলের দিকে যাওয়ার পথে গুলশান থানাধীন শাহাজাদপুরের বাঁশতলায় পথচারী সিমথিয়া সুলতানা মুক্তাকে (২০) চাপা দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। আবারও বেপরোয়াভাবে দ্রুতগতিতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে গাড়ি চালিয়ে গুলশান থানাধীন নর্দ্দা আইকন টাওয়ারের সামনে প্রগতি সরণির পাকা রাস্তার ওপর জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় আমার ছেলে আবরার আহাম্মেদ চৌধুরীকে চাপা দিয়ে বাস তার মাথার ওপর দিয়ে চালিয়ে যায়। ফলে তার মাথা থেতলে মগজ বের হয়ে যায়। ঘটনাস্থলে সে মারা যায়।

এদিন দিবাগত রাতে নিহত আবরারের বাবা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আরিফ আহম্মেদ চৌধুরী বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। মামলায় আসামি করা হয়— বাসের চালক সিরাজুল ইসলাম, তার সহকারী, কন্ডাক্টর ও মালিককে।

এমআই/এসবি

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও