বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ধর্ষণ, শেকৃবি ছাত্র রিমান্ডে

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ধর্ষণ, শেকৃবি ছাত্র রিমান্ডে

আদালত প্রতিবেদক ৭:০৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ধর্ষণ, শেকৃবি ছাত্র রিমান্ডে

কলেজ পড়ুয়া তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ এবং সেই দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করে বারবার ধর্ষণের অভিযোগে বাধন মাতব্বর (২৩) নামে শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এক শিক্ষার্থীর একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদ উর রহমান শুনানি শেষে রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শেরে বাংলা নগর থানার এসআই সাহেরা খানম আসামিকে আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

আবেদনে বলা হয়, গত ১৭ এপ্রিল সকাল ১০টার দিকে শেরে বাংলা নগর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নম্বর গেট হতে ভিকটিমকে ফুসলিয়ে অনুরাগ হোটেলের আশপাশে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরে ভিকটিমের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। ভিকটিম টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে আসামি ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং মানসিকভাবে নির্যাতন করে। নির্যাতন করে ওই দিন বিকেল ৫টার মধ্যে টাকা না দিলে তার আপত্তিকর ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানোর হুমকি দেয়।

এর আগে ওই ঘটনায় গতকাল বুধবার রাতে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে বাধনকে আটক করে পুলিশ।

বাধন মাতব্বর শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্রি বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অনুষদের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।

পুলিশ জানায়, বাধন ওই মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে এবং সেই দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করেন। পরবর্তীতে সে ধারণকৃত দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ওই মেয়ের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। পরে ভুক্তভোগী ওই মেয়ে বাদী হয়ে শেরে বাংলা নগর থানায় মামলা করে।

এমআই/এইচআর