এসআইয়ের বিরুদ্ধে স্ত্রীর অর্থ আত্মসাতের মামলা

ঢাকা, ১৮ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

এসআইয়ের বিরুদ্ধে স্ত্রীর অর্থ আত্মসাতের মামলা

আদালত প্রতিবেদক ৩:৫১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

এসআইয়ের বিরুদ্ধে স্ত্রীর অর্থ আত্মসাতের মামলা

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং থানার পুলিশের এসআই সৈয়দ দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে (৪৫) ৪৪ লাখ ৫৪ হাজার টাকা আত্মসাৎ ও প্রতারণার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন স্ত্রী রেহানা আক্তার রত্মা।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম মাহমুদা আক্তারের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন তিনি।

আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে চকবাজার থানার ওসিকে অভিযোগের বিষয় তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

এ মামলায় এসআই সৈয়দ দেলোয়ার হোসেনের বড় ভাই মো. মোশারফ হোসেনকেও আসামি করা হয়েছে। মামলাটিতে বাদীসহ সাতজন স্বাক্ষীর কথা উল্লেখ রয়েছে।

মামলায় অভিযোগে থেকে জানা যায়, ২০০৭ সালের ২৭ ডিসেম্বর বাদীর সাথে আসামি দেলোয়ার হোসেনের বিয়ে হয়। বাদীর সম্পত্তি দেখে আসামি তা আত্মসাৎ করার জন্য কৌশলে বাদীকে আসামির গ্রামের বাড়ীতে বেড়াতে নিয়ে যায়। আসামির ঘর দরজা ভাল ছিল না বলে বাদীর নিজের ভাগের ঘর বন্ধক রেখে ২০১০ সালের ২৪ ডিসেম্বর তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা দেলোয়ার হোসেনকে প্রদান করেন।

২০১১ সালের ৭ মে বাদীর ভাগের নীচ তলা বন্ধক রেখে চার লাখ টাকা গ্রহণ করেন দেলোয়ার। এরপরও দেলোয়ার আরো টাকা দাবি করে। পরের বছর ৪ মার্চ বাদী ৪র্থ তলার ভাড়া নিয়ে তা মর্গেজ দিয়ে তিন লাখ টাকা এনে দেলোয়ারকে দেন। এরপর মামলার ২ নং আসামি মোশারফ হোসেন বাড়ি নির্মাণ এক লাখ ২০ হাজার টাকা গ্রহণ করে। বাড়ি নির্মাণ করার কথা বলে তারা মোট ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করে। দেলোয়ার হোসেনের প্রমোশনে ১০ লাখ টাকার প্রয়োজন জানালে বাদী তাকে জমি বিক্রি করে ৬ লাখ টাকা দেন। পরবর্তীতে দেলোয়ার হোসেনের এসআই পদে প্রমোশনের জন্য ৩০ লাখ টাকা প্রয়োজন হয়। তার কাছে ১০ লাখ টাকা আছে। বাকী ২০ লাখ টাকা তিনি বাদীর কাছে চান। বাদী ফ্ল্যাট বিক্রয় করে তাকে ১৯ লাখ টাকা দেন। এভাবে আসামিরা প্রায় ৪৪ লাখ ৫৪ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন।

২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর আইজিপি বরাবর দরখাস্ত দায়ের করলে বিষয়টি তদন্ত করে উপ-পুলিশ কমিশনার লালবাগ বিভাগ প্রতিবেদন দাখিল করেন।

ওই দুই আসামি ৩৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা বাদীর কাছ থেকে আত্মসাৎ করেন বলে প্রতিবেদনে উঠে আসে এজাহারে উল্লখ করা হয়।

এমআই/এএসটি

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও