আবজাল দম্পতির সম্পত্তিতে ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

আবজাল দম্পতির সম্পত্তিতে ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৫:২৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯

আবজাল দম্পতির সম্পত্তিতে ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড

দুর্নীতির মাধ্যমে বিপুল সম্পদ অর্জন করা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল হোসেন দম্পতির নামে থাকা ২৫টি বাড়ি-প্লট ও জমি জব্দের আদেশ বাস্তবায়নে সম্পত্তিগুলোতে ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড লাগানো শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার রাজধানীর উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর সড়কের পাশে সাড়ে তিন কাঠা প্লটে ছয়তলা বাড়িতে প্রথম বিলবোর্ডটি লাগানো হয়। এ বাড়ির মালিক আবজাল হোসেনের স্ত্রী রুবিনা খানম।

আবজাল হোসেন দম্পতির দুর্নীতি অনুসন্ধান কর্মকর্তা ও সংস্থার উপ-পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম, উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলম এবং উপ-পরিচালক এ কে এম মাহবুবুর রহমানের সমন্বয়ে দুদকের একটি কমিটি ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড স্থাপন করেন।

এরপর দুদকেন অনুসন্ধান কর্মকর্তা তৌফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আদালতের নির্দেশে আবজাল ও তার স্ত্রীর নামে থাকা অবৈধ সম্পদের ওপর ক্রোক-আদেশের বিলবোর্ড লাগিয়ে যাচ্ছি। আজ উত্তরায় তাদের দুটি বাড়ি ও দুটি প্লট এবং বাড্ডায় আরেকটি প্লটে এ ধরনের বিলবোর্ড লাগানো হবে।’

পর্যায়ক্রমে তাদের নামে থাকা অন্যান্য সম্পত্তির ওপর বিলবোর্ড স্থাপন করা হবে বলেও জানান তিনি।

আবজাল হোসেন দম্পতির ২৫টি বাড়ি ও প্লটের খোঁজ পেয়েছে দুদক। এর মধ্যে ঢাকায় ১৫টি বাড়ি ও প্লট রয়েছে তাদের।

এসব সম্পত্তির ওপর বিলবোর্ড স্থাপন করতে সম্প্রতি তিন সদস্যের একটি কমিটি করে দুদক। এর আগে গত ২১ জানুয়ারি দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ জব্দ করা হয়।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি আবজাল হোসেন, তার স্ত্রী রুবিনা খানম এবং তাদের ১৫ নিকটাত্মীয়ের আরো সম্পদের খোঁজে মাঠে নামে সংস্থাটি।

সুনির্দিষ্টভাবে এই ১৭ জনের সম্পদের খোঁজ চেয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে চিঠি দেয় সংস্থাটি।

দুদক কর্মকর্তারা জানান, আবজাল হোসেনের যেসব সম্পদের তথ্য তাদের হাতে আছে, তার বাইরেও অনেক সম্পদ রয়েছে। আবজাল দম্পতি তাদের নিকটাত্মীয়দের নামে এসব সম্পদ করেছেন। তাই এসব সম্পদের তথ্য চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দেয়া হয়।

টিএটি/এইচআর