বিএনপির দু’নেতার মনোনয়ন বৈধ করার নির্দেশ হাইকোর্টের

ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬

বিএনপির দু’নেতার মনোনয়ন বৈধ করার নির্দেশ হাইকোর্টের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ২:৩১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১০, ২০১৮

বিএনপির দু’নেতার মনোনয়ন বৈধ করার নির্দেশ হাইকোর্টের

ফৌজদারি মামলায় নিম্ন আদালতে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষিত  বিএনপি নেতাদের মধ্যে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর মনোনয়ন বৈধ করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এর মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ পেয়েছেন তারা।

ফৌজদারি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় তাদের দুজনের মনোনয়নপত্র বাতিল করে দিয়েছিলেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। নির্বাচন কমিশনে আপিল করলে সেখানেও ওই সিদ্ধান্ত বহাল থাকে।

কমিশনের ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে টুকু ও বুলু হাইকোর্টে রিট আবেদন করলে, শুনানি করে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে।

রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ফিদা এম কামাল। সঙ্গে ছিলেন, সৈয়দ আল আশাফুর আলী রাজা। ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর পক্ষে শুননি করেন আজমালুল হোসেন কিউসি। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।

রিটকারী দুই বিএনপি নেতার আইনজীবীরা জানিয়েছেন, ইসির সিদ্ধান্ত স্থগিত করার পাশাপাশি দুলু ও টুকুর মনোনয়নপত্র বৈধ হিসেবে গ্রহণ করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

সেই সঙ্গে ওই দুই আসনে দলের কোনো বিকল্প প্রার্থী থাকলে এবং তারা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে চাইলে সেই সুযোগও দিতে বলা হয়েছে।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টুকু সিরাজগঞ্জ-২ এবং দুলু নাটোর-২ আসনে দলের মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

কিন্তু নির্বাচন কমিশনে আপিল খারিজ হয়ে যাওয়ার পর টুকুর আসনে তার স্ত্রী রুমানা মাহমুদ এবং দুলুর আসনে তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচন কমিশনে তালিকা পাঠায় বিএনপি মহাসচিব।

আইনজীবী আজমালুল হোসেন কিউসি সাংবাদিকদের বলেন, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর দুর্নীতির মামলায় সাজা হয়েছিলো। হাইকোর্টে আপিল করে তিনি খালাস পান। পরে দুদক আপিল করলে আপিল বিভাগ পুনঃশুনানির জন্য মামলাটি হাইকোর্টে ফেরত পাঠায়।

তিনি বলেন, হাইকোর্টে ২০০৯ সালে যখন এসেছিলাম, তখন ফৌজদারি কার্যবিধির ৪২৬ ধারা অনুসারে কনভিকশন ও সেনটেন্স সাসপেন্ড করেছিলেন হাইকোর্ট। এ অর্ডারটা এখনো বহাল আছে। এর প্রেক্ষিতে আজকে জিতলাম।

হাইকোর্ট টুকুর মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে নির্দেশ দেয়ায় তার নির্বাচনে অংশ নিতে আর বাধা নেই বলেও জানান এই আইনজীবী।

তিনি বলেন, একেকটি আসনে রাজনৈতিকভাবে কয়েকজনকে প্রার্থী করা হয়েছে। এখন যদি কোনো প্রার্থী উনার আসনে প্রত্যাহার করতে চায় তাহলে সেটাও গ্রহণ করতে বলেছে হাইকোর্ট।

আইনজীবী সৈয়দ আল আশাফুর আলী রাজা বলেন, আজকের আদেশের ফলে রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর নির্বাচনে অংশ নিতে বাধা নেই।

ওএস/এফএম