‘বিজ্ঞ অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে এমন আচরণ আশা করিনি’

ঢাকা, রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫

‘বিজ্ঞ অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে এমন আচরণ আশা করিনি’

হাইকোর্ট প্রতিবেদক ৫:০১ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০১৮

‘বিজ্ঞ অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে এমন আচরণ আশা করিনি’

অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন অ্যাটর্নি জেনারেল ইচ্ছাকৃতভাবে বিলম্বিত করছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি বলেন, বিজ্ঞ অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে এরকম আচরণ আশা করিনি।

হত্যার অভিযোগে করা কুমিল্লার এক মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনাদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল শুনানি শেষে সাংবাদিকদের কাছে এই অভিযোগ করেন তিনি।

শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় বাসে পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ হত্যার ঘটনাটিকে হিটলারি কায়দার সঙ্গে তুলনা করেন।

এ বিষয়ে খন্দকার মাহবুব বলেন, ঘটনা সত্যিই হয়েছে। সরকারি এজেন্টরা হিটলারি কায়দার পেট্রোল বোমা মেরে জনগণকে মেরেছে। বিরোধী দলের ওপর এর দোষ চাপিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে এরকম করেছে।

তিনি বলেন, আদালতে আমরা দেখিয়ে দেব যে, কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, কারা পেট্রোল বোমা মেরেছে। আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে নস্যাৎ করতে সরকারের এজেন্টরা পেট্রোল বোমা মেরে নাশকতা করেছে।

জ্যেষ্ঠ এই আইনজীবী বলেন, এঘটনার দায়-দায়িত্ব বেগম খালেদা জিয়ার ওপর নয়। তিনি ওই সময় গুলশান কার্যালয়ে অবরুদ্ধ ছিলেন। তিনি তখন হরতাল ডেকেছিলেন ঠিকই। কিন্তু মানুষ হত্যা করতে তিনি বলেননি।

তিনি বলেন, মামলার এফআইআরে ৫৬ জনের নাম ছিল। সেখানে খালেদা জিয়ার নাম ছিল না। পরবর্তী পর্যায়ে দ্বিতীয়বারের অভিযোগপত্রে তার নাম ঢুকানো হয়েছে।

খন্দকার মাহবুব বলেন, দীর্ঘ সময় পর আমরা হাইকোর্ট থেকে খালেদা জিয়ার জামিন নিয়েছি। কিন্তু সরকার এর বিরুদ্ধে আপিল করে। আজকে অ্যাটর্নি জেনারেল বিরোধিতা (খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে) করেন।

তিনি জানান, ৩০২ ধারায় (হত্যার অভিযোগে) দায়ের করা মামলার ওপর শুনানি করা হয়েছে। আগামী ২ জুলাই রায়ের জন্য দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত।

খন্দকার মাহবুব আরও বলেন, আমরা লজ্জিত, আমরা ক্ষুব্ধ। আমরা বললাম (শুনানিতে) এ মামলায় অ্যাটর্নি জেনারেল ইচ্ছাকৃতভাবে জামিনে বিষয়ে দেরি করছেন।

তিনি বলেন, সোমবার একই ঘটনায় নাশকতার অভিযোগ এনে দায়ের করা মামলাটির জামিন বিষয়ে শুনানি শুরু হবে। আমরা বারবার কোর্টকে বলেছিলাম খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ, বৃদ্ধা মহিলা, মানবিক কারণে বেইল অ্যাপলিকেশন (জামিন আবেদন) করেছি।

‘কিন্তু অ্যাটর্নি জেনারেল কোন অজ্ঞাত কারণে মামলাটি দীর্ঘায়িত করছেন এবং আমরা এই ব্যাপারে ক্ষুব্ধ, লজ্জিত, দেশের সর্বোচ্চ আদালতের কাছ থেকে, দেশের বিজ্ঞ অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে এরকম আচরণ আশা করিনি’ যোগ করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী বলেন, সোমবার নাশকতার অভিযোগে দায়ের করা মামলার জামিনের বিষয়ে শুনানি শুরু হবে। আমরা আশা করব মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে আদালত খালেদা জিয়ার জামিন নিশ্চিত করবেন।

এমএ/এমএসআই