জামিনের জন্য খালেদার অপেক্ষা বাড়ল

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫

জামিনের জন্য খালেদার অপেক্ষা বাড়ল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৩:৫৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৮

জামিনের জন্য খালেদার অপেক্ষা বাড়ল

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। নিম্ম আদালতের নথি আসার পরে এ বিষয়ে আদেশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট। রোববার দুপুরে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আদেশ দেন।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে।

সেদিন আদালত ১৫ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালত থেকে মামলার নথি পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। সে হিসেবে নথি পাঠাতে আরো ১২ দিন সময় পাবে বিচারিক আদালত। ফলে শিগগিরই যে খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না তা স্পষ্ট।

সংখ্যাধিক্য আইনজীবীর কারণে এজেলাস কক্ষের পরিবেশ ‘অস্বাভাবিক’ হওয়ায় ১০ মিনিট বিরতি দিয়ে বেলা আড়াইটায় ফের জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শুরু হয়। এরপর বেলা তিনটা ৪০ মিনিটে শুনানি শেষ হয়।

এরআগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাজার বিরুদ্ধে করা খালেদা জিয়ার আপিল ও জামিন আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করেন হাইকোর্ট।

ওইদিন বিচারিক আদালতে খালেদা জিয়াকে দেয়া অর্থদণ্ডাদেশ স্থগিত করা হয়। আর এ মামলায় বিচারিক আদালতের নথি ১৫ দিনের মধ্যে জমা দেয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এই মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং তারেক রহমানসহ অপর আসামিদের প্রত্যেককে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

পাশাপাশি ছয় আসামির সবাইকে মোট ২ কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। রায়ে এই অর্থ সবাইকে সমানভাবে ভাগ করে পরিশোধ করতে বলা হয়।

রায়ের পর থেকে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন খালেদা জিয়া। পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর ১ হাজার ১৭৪ পৃষ্ঠার অনুলিপি নিয়ে খালেদা জিয়া সাজা ও জামিন আবেদন করেন।

এমএইচ/আইএম

আরও পড়ুন...
‘পরিবেশ শান্ত করুন’ বলেই উঠে গেলেন বিচারপতি
খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আবার শুরু
খালেদা জিয়ার ৫ রোগ