ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন শিথিলে হবে ‘সাব-সেকশন’

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন শিথিলে হবে ‘সাব-সেকশন’

শাহাদৎ স্বপন ৫:৫৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন শিথিলে হবে ‘সাব-সেকশন’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের যেখানে সাংবাদিকদের কাজের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হয়, সেখানে প্রয়োজনে সাব-সেকশন করে তা শিথিল করা হবে। এটা নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই। রোববার সচিবালয়ে নিজ দফতরে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি আমি যখন ল’ রিপোর্টার্স ফোরামের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম, সেখানে একজন সাংবাদিক আমাকে বলেছিলেন- যুক্তরাজ্যে আমাদের মতোই ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের একটি ধারা আছে। কিন্তু ওই আইনে একটি সাব-সেকশন আছে। সেখানে বলা হয়েছে- এই গুপ্তচরবৃত্তি যদি জননিরাপত্তা বা দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়, তাহলে এই আইন প্রযোজ্য হবে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সেক্ষেত্রে আমিও বলেছিলাম- আপনি (প্রশ্নকারী সাংবাদিক) যেহেতু পয়েন্ট আউট করলেন, তাহলে আমি দেখব সাব-সেকশন করা যায় কিনা।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন- আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদকও একই কথা বলেছেন। এ আইন কারও জন্য হুমকি নয়। ফলে আমাদের অবস্থান এখানে পরিষ্কার।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘যারা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে কথা বলছেন, এটা কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কিছু করার জন্য নয়। আমি এটা এর আগেও বলেছি।’

৫৭ ধারার মতোই এই আইনের অপব্যবহার হবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এটা অপব্যহারের অনুমান করছেন। দেখুন, স্পেশাল পাওয়ার অ্যাক্ট নিয়েও অনেকে এ ধরনের কমপ্লেন করেছিলেন। সেটা ছিল- কোনো কথা বললেই ডিটেনশন দিয়ে দেয়া হবে। কিন্তু কই তাতো হচ্ছে না।’

আনিসুল হক বলেন, ‘এখানে ব্যবহার আর অপব্যবহারের বিষয়টিই হচ্ছে প্রশ্ন। আমরা যেটা করেছি- অপব্যবহারের সুযোগ আমরা কমিয়ে এনেছি। প্রয়োজনে অপব্যবহারের সুযোগ যদি আরও কমিয়ে আনার দরকার হয়, তাহলে সেটাও আমরা করব।’

খালেদা জিয়ার রায়ের কপি পেতে দেরি হচ্ছে বিএনপির এমন অভিযোগের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘এটা আদালতের বিষয়। এখানে আমার বলার কিছু নেই। মওদুদ সাহেবরা তো অনেক কিছুই অভিযোগ করতে পারেন। ওনারা আইনই মানেন না। ওনাদের অভিযোগের কিছু নেই।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা (সাংবাদিক) মওদুদ সাহেবকে প্রশ্ন করেন- উনি আইনমন্ত্রী থাকাকালে আমরা কেন বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার পাইনি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আইনের কোনো ব্যত্যয় ঘটাচ্ছি না। রায়ের কপি দেবে আদালত। এটা তাদের বিষয়। যেহেতু কোর্ট রায় দিয়েছে, রায়ের কপিও দেবেন। এটা নিয়ে অনিশ্চয়তার কোনো কারণ নেই। আমি একজন আইনজীবী হিসেবে বলতে পারি, যেহেতু অনেক পৃষ্টার রায়, তাই একটু দেরি হতে পারে।’

এসএস/এমএসআই