রোগীর মৃত্যূতে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে চিকিৎসক লাঞ্চিত

ঢাকা, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০ | ৬ মাঘ ১৪২৬

রোগীর মৃত্যূতে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে চিকিৎসক লাঞ্চিত

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ৫:১৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

রোগীর মৃত্যূতে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে চিকিৎসক লাঞ্চিত

চুয়াডাঙ্গায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ এনে সদর হাসপতালের চিকিৎসক ও ও নার্সদেরকে লাঞ্চিত করেছে রোগীর স্বজনরা। শনিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের ফিমেল মেডিসিন ওয়ার্ডে এ লাঞ্চিতের ঘটনা ঘটে।

সদর হাসপাতাল সূত্র জানায়, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার ধোপাখালী গ্রামের রাবেয়া খাতুন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গত শুক্রবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরদিন শনিবার সকালে জ্ঞান হারান তিনি। এসময় চিকিৎসকরা তার হৃদস্পন্দন না পেলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে তার স্বজনরা। এসময় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আরএমও ডাঃ শামীম কবিরকে লাঞ্চিত করে তারা।

নিহতের ছেলে তরিকুল ইসলাম বলেন, তার মায়ের অবস্থা খারাপ হওয়ায় বারবার চিকিৎসকদের ডাকলেও তারা দ্রুত রোগীর কাছে পৌঁছায়নি। এছাড়া রোগীকে দ্রুত অক্সিজেন দিতে বললেও তারা অপারগতা প্রকাশ করে। এর এক পর্যায়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে মা রাবেয়া খাতুন।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল কর্মকর্তা (আরএমও) ডাঃ শামীম কবির জানান, রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন শুনে তিনি ওয়ার্ডে ছুটে যান। গিয়ে রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাস ও হৃদস্পন্দন না পেয়ে মৃত ঘোষনা করে। এরপরই ওই রোগীর ছেলে তরিকুলসহ আরো কয়েকজন স্বজন তাকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালাগালিসহ জামার কলার টেনে ধরে। টানা হেঁচড়া করে ওয়ার্ডের বাইরে নিয়ে আসে তাকে। এসময় ওয়ার্ডে কর্তব্যরত নার্স আছিয়া খাতুন ও শিউলী পারভীনকেও হেনস্থা করে তারা।পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডাঃ এএসএম মারুফ হাসান জানান, ঘটনার পরপরই তিনি হাসপাতালে পৌঁছান। হাসপাতালের সবাইকে নিয়ে একসাথে বসার পর ঘটনার নিন্দা প্রকাশ করা হয়। অভিযুক্তর কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করে সবার সম্মতিতে নিহতের মরদেহ ফেরত দেয়া হয়েছে।

এই/এফএ

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও