নড়াইলেও বন্ধ পরিবহন, সীমাহীন দুর্ভোগ

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নড়াইলেও বন্ধ পরিবহন, সীমাহীন দুর্ভোগ

নড়াইল প্রতিনিধি ১২:২৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

নড়াইলেও বন্ধ পরিবহন, সীমাহীন দুর্ভোগ

নতুন সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ সংশোধনের দাবিতে নড়াইল-ঢাকা, নড়াইল-খুলনা, নড়াইল-যশোরসহ জেলার সকল রুটে দ্বিতীয় দিনের মত বাস ধর্মঘট চলছে। একই সাথে মঙ্গলবার থেকে ট্রাক চালকরাও ধর্মঘট শুরু করেছে।

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিকল্প যানবাহনে চলাচল করলেও যাত্রীদের দ্বিগুণেরও বেশি ভাড়া গুণতে হচ্ছে।

জানা গেছে, নতুন সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ সংশোধনের দাবিতে বাস শ্রমিকরা গত রোববার সন্ধ্যা থেকে কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই নড়াইল-যশোর, নড়াইল-খুলনাসহ কয়েকটি রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরেরদিন গত সোমবার থেকে অভ্যন্তরীণ সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ায় যাত্রীরা পড়েন চরম বিপাকে। জরুরী প্রয়োজনেও গন্তব্যে যেতে পারছেন না যাত্রীরা। 

লোহাগড়া সরকারপাড়ার বাসিন্দা লাভলী বেগম বলেন, ‘আমি লোহাগড়া জনতা ব্যাংকে চাকরি করি। বাস ধর্মঘটের কথা জানতাম না। জরুরি কাজে খুলনা যাওয়ার জন্য একদিনের ছুটি নিয়েছি। কিন্তু এখন কিভাবে খুলনায় যাবো তা বুঝতে পারছি না।’

নড়াইল সরকারী ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্র আশিষ বিশ্বাস বলেন, ‘আমি জরুরি কাজে ঝিনাইদহ যাবো। কিন্তু বাস চলাচল না করায় চরম দুর্ভোগে পড়েছি। এখন দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে ঝুকিপূর্ণভাবে ইজিবাইকে যশোর যেতে হবে। তারপর বিকল্প পদ্ধতিতে গন্তব্যে যেতে হবে।’

নড়াইল শহরের মহিষখোলার বাসিন্দা রমজান মোল্যা বলেন, ‘আমি আমার স্ত্রীকে ডাক্তার দেখাতে ঢাকায় যাবো। কিন্তু বাস চলাচল বন্ধ হওয়ার কারনে যেতে পারলাম না। দ্রুত সমস্যার সমাধান না হলে ভীষণ সমস্যায় পড়তে হবে।’

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা বিভাগীয় কার্যকরী কমিটির সভাপতি ও নড়াইল জেলা বাস- মিনিবাস-মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মো. সাদেক আহম্মেদ খান বলেন, ‘২য় দিনের মত শ্রমিকরা গাড়ি চালানো বন্ধ রেখেছে। নতুন আইনের কিছু ধারা শিথিল করা না হলে শ্রমিকরা গাড়ি চালাবে না। আশা করি সরকার সমস্যা সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।’

এএস/পিএসএস

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও