অতিরিক্ত পড়ানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অতিরিক্ত পড়ানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ৪:৪৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৯

অতিরিক্ত পড়ানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার মজলিশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহীন উদ্দীনের বিরুদ্ধে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার বিকেলে স্কুলের একটি কক্ষে ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়।

এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর মা দামুড়হুদা মডেল থানায় মামলা করলে পুলিশ রোববার মধ্যরাতে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে।

অভিযুক্ত শিক্ষক শাহীন উদ্দীন দামুড়হুদা উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের ইসলাম উদ্দীনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, মজলিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষকতা করেন শাহীন উদ্দীন। ক্লাসের পর স্কুলের একটি কক্ষেই ছেলে-মেয়েদের প্রাইভেট পড়ান তিনি।

চতুর্থ শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগ, শনিবার বিকেলে প্রাইভেট পড়া শেষে সবাইকে ছুটি দিলেও অতিরিক্ত পড়ার কথা বলে তাকে আটকে রাখা হয়। এরপর সবাই চলে গেলে অভিযুক্ত শিক্ষক তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে পালিয়ে রক্ষা পায় ওই স্কুলছাত্রী।

ওই শিক্ষার্থীর বাবা জানান, ‘বিষয়টি আমরা জানার পর স্কুল পরিচালনা পর্ষদকে জানায়। এরপর তারা রোববার সন্ধ্যায় সালিশ বৈঠকের আয়োজন করেন। বৈঠকে বিষয়টি মীমাংসার জন্য চাপ দিলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে গ্রামজুড়ে। এক পর্যায়ে মারামারির ঘটনাও ঘটে। মারপিটের শিকার হন একজন সংবাদকর্মীও। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।’

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস জানান, ‘ঘটনাটি জানার পর আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। সেখানে থেকে প্রাথমিকভাবে আমরা অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে হেফাজতে নিই। পরে রাতে ওই শিক্ষার্থীর মা এ ঘটনায় দামুড়হুদা থানায় একটি মামলা করলে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার দেখানো হয়।’

এইচআর

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও