ঝড়ে মোংলার মানুষের ভরসা ‘সুন্দরবন’, বিপাকে প্রশাসন! (ভিডিও)

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

ঝড়ে মোংলার মানুষের ভরসা ‘সুন্দরবন’, বিপাকে প্রশাসন! (ভিডিও)

মোংলা প্রতিনিধি ১:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের জন্য মোংলায় শনিবার (৯ নভেম্বর) ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করা হয়েছে। প্রাশাসন এ ব্যাপারে ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা চালালেও জনগনের মাঝে এ ব্যাপারে তেমন আগ্রহ নেই। মুসল ধারা বৃষ্টি আর থেমে থেমে দমকা হাওয়া বইলেও আশ্রয় কেন্দ্রে যাচ্ছেন না স্থানীয়রা। বিষয়টি ভাবিয়ে তুলছে খোদ প্রশাসনকেও।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাহাত মান্নান বলেন, মহাবিপদ সংকেত জারির পর যেসব ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে যাচ্ছেন না তাদের জোর করে আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়ার তৎপরতা শুরু হয়েছে।

তবে কেন তারা আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে চান না এমন প্রশ্নের জবাব দিলেন মোংলা পৌর সভার মেয়র জুলফিকার আলী। তিনি বলেন, আগের দিনগুলোতে বড় বড় ঘূর্ণিঝড় আসলেও সুন্দরবনে বাধা পেয়ে তা দিক পরিবর্তন হয়ে ঘুরে চলে গেছে।

তাই সুন্দরবনকে ভরসা করে মোংলার সাধারণ মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে চায় না।

একই কথা বললেন সমাজকর্মী আশিকুর রহমান কনক। তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় আসলে মোংলার মানুষ মনে করেন সুন্দরবন হচ্ছে তাদের ভরসা। এ বনের কারণে বড় ঝড় আসলেও মোংলার কিছুই হবে। এই ধারণা থেকে এখানকার মানুষের ঝড়ের ভয় কম।

অপরদিকে, ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের প্রস্তুতি নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষও। বন্দরে অবস্থান করা দেশি-বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে পশুর চ্যানেলে নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া, বন্ধ রাখা হয়েছে মোংলা বন্দরে জাহাজ আগমন ও নির্গমনও।

বন্দরের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দিন বলেন, তাদের পক্ষ থেকে এম টি সুন্দরবন, এম টি শিপসা ও এমটি অগ্নিপ্রহরী নামে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এছাড়া কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকেও প্রস্তুত রাখা হয়েছে কামরুজ্জামান, মুনসুর আলী, স্বাধীন বাংলা, সোনার বাংলা ও অপারেজয় বাংলা নামে পাঁচটি উদ্ধারকারী জাহাজ।

শুক্রবার তিনি জানিয়েছিলেন, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে তিনটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। বন্দর জেটি ও আউটার অ্যাংকরেজে অবস্থানরত ১৪টি জাহাজ নিরাপদে রয়েছে। বন্দরের সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

এমএমএফ/জেডএস

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও