মোংলায় ৭ নম্বর সতর্ক সংকেত

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মোংলায় ৭ নম্বর সতর্ক সংকেত

মোংলা প্রতিনিধি ৭:২৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৮, ২০১৯

মোংলায় ৭ নম্বর সতর্ক সংকেত

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাব শুক্রবার সন্ধ্যার সাথে সাথে বাড়তে শুরু করেছে মোংলায়। দুপুর থেকে পিটপিট করে বৃষ্টি পড়তে থাকলেও সন্ধ্যা গড়ার সাথে সাথে অঝরে বৃষ্টি ঝড়ছে। পুরো শহরের রাস্তাঘাট বলতে গেলে জনমানবহীন। প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া কেউই ঘর থেকে বের হচ্ছে না।

ঘূর্ণিঝড়টি এখন মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। এ কারণে মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক জানান, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য সাগর এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পূর্ব-মধ্যসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এটি মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। এ কারণে মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে খোলা হয়েছে তিনটি কন্ট্রোলরুম। বন্দরে এই মুহূর্তে মেশিনারি, ক্লিংকার, সার, জিপসাম, পাথর, সিরামিক ও কয়লাসহ দেশি-বিদেশি মোট ১৪টি বাণিজ্যিক জাহাজ অবস্থান করছে।

এসব জাহাজে পণ্য খালাসে সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলেও জানান বন্দরের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফকর উদ্দিন।

 একই কারণে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে উপজেলা প্রশাসনেও। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. রাহাত মান্নান এ তথ্য জানিয়ে বলেন, প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের কারণে উপজেলার সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রস্তুতিমূলক সভা করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান জানান, ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে, অবস্থা প্রতিকূল হলে দুবলার চরে জেলেদের মাছ ধরতে অনুমতি দেয়া হবে না।

এরই মধ্যে বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার সব নৌকা ও ট্রলারকে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এমএমএফ/এইচআর
আরও পড়ুন...
সাগর উত্তাল, হাতিয়ায় নৌ-চলাচল বন্ধ
‘বুলবুল’ শনিবার রাতে আঘাত হানতে পারে

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও