যশোর আদালতের সাবেক নাজির রবিউলের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

যশোর আদালতের সাবেক নাজির রবিউলের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

যশোর ব্যুরো ৬:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০১৯

যশোর আদালতের সাবেক নাজির রবিউলের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

যশোরে জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে জেলা জজ আদালতের সাবেক নাজির রবিউল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সমন্বিত কার্যালয় যশোরের সহকারী পরিচালক মোশাররফ হোসেন কোতয়ালী থানায় রোববার মামলা দায়ের করেছেন।

আসামি রবিউল ইসলাম যশোর শহরের গাড়িখানা রোডের মৃত ইসহাক সরদারের ছেলে।

জানতে চাইলে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক নাজমুচ্ছায়াদাত বলেন, যশোর জেলা জজ আদালতের সাবেক নাজির বরিউল ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে সত্যতা যাচাইয়ের জন্য নোটিশ দেয়া হয়। দাখিলকৃত সম্পদের হিসাব বিবরণী যাচাই বাছাই করে জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের  সত্যতা পাওয়ায় মামলা করা হয়েছে।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, অভিযুক্ত রবিউল ইসলামের মোট সম্পদের পরিমাণ এক কোটি ৬৭ লাখ ৭৪ হাজার ৯৯৭ টাকা ও ১৪ ভরি সোনার গহনা। ২০১২ সালের ২৩ জুলাই দুদকে সম্পদের হিসাব জমা দেন। সেখানে হিসাব দেন এক কোটি ৫৫ লাখ ৯৯৭ টাকা ও ১৪ ভারি সোনার গহনা আছে। কিন্তু  হিসাব বিবরণীতে ১২ লাখ ৩৪ হাজার ৯৯৭ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন রবিউল।

হিসাব বিবরণীতে যশোর শহরের গাড়িখানা রোডে ওয়ারেশ সূত্রে প্রাপ্ত ভবনের ওপর থাকা স্থাপনার মূল্য ৭০ লাখ টাকা, পুরাতন কসবা এলাকায় ৭ দশমিক ২৫ শতক জমির ক্রয় মূল্য ৪০ হাজার টাকা দেখিয়েছেন। ওই জমিতে ৬ লাখ টাকা ব্যয় করে তিন তলার বিল্ডিং নির্মাণসহ স্থাবর সম্পাদের হিসাব ৭৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা দেখিয়েছেন। বিভিন্ন ব্যাংক, ডাকঘর ও অন্যান্য স্থানে বিনিয়োগ আছে আরো ৭৯ লাখ টাকা।

দুদকের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের চিত্র।  রবিউল ইসলাম তার যশোর শহরের পুরাতন কসবায় জমি এবং বিল্ডিং নির্মাণে মোট ব্যয় করেছেন ৮৮ লাখ ৭৪ হাজার ৯৯৭ টাকা। এখানে ১২ লাখ ৩৪ হাজার ৯৯৭ টাকা কম দেখিয়েছেন। ব্যাংক, ডাকঘরসহ বিভিন্ন স্থানে যে বিনিয়োগ দেখানো হয়েছে তা সঠিক আছে। তার মোট সম্পদের পরিমান এক কোটি ৬৭ লাখ ৯৯৭ টাকা। ফলে রবিউল ইসলাম তার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ১২ লাখ ৩৪ হাজার ৯৯৭ টাকার সম্পদ দুদকে গোপন করেছেন।

জ্ঞাত বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৬(২) এবং ২৭(১) ধারায়  মামলা করা হয়েছে। কোতয়ালি থানার মামলা নম্বর-৫৫, তারিখ-২৩-০৬-২০১৯।

আইআর/জেডএস/

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও