সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে ‘স্বেচ্ছাসেবক লীগ’ অফিসে মাদক ব্যবসা

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে ‘স্বেচ্ছাসেবক লীগ’ অফিসে মাদক ব্যবসা

শাহরিয়ার আলম সোহাগ, ঝিনাইদহ ৪:০৮ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯

সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে ‘স্বেচ্ছাসেবক লীগ’ অফিসে মাদক ব্যবসা

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের দলীয় কার্যালয়ে সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে মাদক ব্যবসা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি মাদক কারবারীদের। আটক করা হয়েছে নারীসহ দুইজনকে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে শহরের শহরের কালীবাড়ি মোড়ের এই অফিসটিতে অভিযান চালায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।


আটকেরা হলেন, উপজেলার ফয়লা গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক কাউন্সিলর বজলুর রশীদ নান্নু (৫০) ও নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মতিয়ার রহমানের মেয়ে সোনিয়া আক্তার আকাশি (২১)।

ঝিনাইদহের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে পরিবর্তন ডটকমকে জানান, বজলুর রশীদ নান্নুর কাছ থেকে ৩০টি ইয়াবা ও ৫ বোতল ফেনসিডিল এবং সোনিয়ার কাছ থেকে ৫০টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।   

এ সময় অফিসটিতে গিয়ে দেখা যায়, সাইন বোর্ডটিতে লেখা বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, প্রধান কার্যালয়, উপজেলা শাখা, কালীগঞ্জ, ঝিনাইদহ। সাইন বোর্ডে ঝুলানো আছে লজিটেক কোম্পানির একটি সিসি ক্যামেরা। যেটা দিয়ে সামনের রাস্তার পুরো অংশ দেখা যায়। সামনে দিয়ে কেউ অফিসে প্রবেশ করলে তিনি ঘরের মধ্যে থেকে দেখতে পারবেন। এই অফিসটির পিছনে নদী।


কালীগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার এএসআই সাইফুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ঝিনাইদহের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৬ নভেম্বর একই দলীয় কার্যালয় থেকে বজলুর রশীদ নান্নুকে মাদকসহ আটক করে ঝিনাইদহ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। সে সময় অফিস তল্লাশি করে ৯৬টি ইয়াবা, ১ বোতল ফেনসিডিল ও মাদক বিক্রির ২৭৭০ টাকা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার কয়েকদিন পর মাদক ব্যবসায়ের অফিযোগে তাকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

এএসটি/