আবজালের খুলনার প্লটও ক্রোক করেছে দুদক

ঢাকা, ১৭ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

আবজালের খুলনার প্লটও ক্রোক করেছে দুদক

খুলনা ব্যুরো ১১:৩৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০১৯

আবজালের খুলনার প্লটও ক্রোক করেছে দুদক

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক হিসাবরক্ষক আবজাল হোসেনের দুটি প্লট ক্রোক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কেডিএ) মুজগুন্নী আবাসিক এলাকার ৬৫১ ও ৬৫২ নম্বর প্লট দুটি ক্রোক করে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয় দুদকের কর্মকর্তারা।

এ সময় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ ও খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. নাজমুল হাসান জানান, ঢাকা থেকে আবজাল হোসেনের দুটি প্লট ক্রোকের নির্দেশ আসার পর তারা অভিযান শুরু করে। তারা জানতে পারে নগরীর খালিশপুর মৌজার মুজগুন্নী আবাসিক এলাকায় আবজাল হোসেনের ৫ দশমিক ৪৫ কাঠা এবং ৩ দশমিক ৩৪ কাঠার দুটি প্লট রয়েছে। প্লট দুটি বর্তমানে ফাঁকা পড়ে আছে। সেখানে মাল ক্রোকের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে।

এর আগে গত ১৬ মার্চ রাজধানীর উত্তরায় আবজাল হোসেনের পাঁচতলা ও ছয়তলা দুটি বাড়ি ক্রোক করে দুর্নীতি দমন কমিশন।

আবজাল হোসেন দম্পতির ২৫টি বাড়ি ও প্লটের খোঁজ পেয়েছে দুদক। এর মধ্যে ঢাকায় ১৫টি বাড়ি ও প্লট রয়েছে তাদের।

এসব সম্পত্তির ওপর বিলবোর্ড স্থাপন করতে সম্প্রতি তিন সদস্যের একটি কমিটি করে দুদক। এর আগে গত ২১ জানুয়ারি দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ জব্দ করা হয়।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি আবজাল হোসেন, তার স্ত্রী রুবিনা খানম এবং তাদের ১৫ নিকটাত্মীয়ের আরো সম্পদের খোঁজে মাঠে নামে সংস্থাটি।

দুদক কর্মকর্তারা জানান, আবজাল হোসেনের যেসব সম্পদের তথ্য তাদের হাতে আছে, তার বাইরেও অনেক সম্পদ রয়েছে। আবজাল দম্পতি তাদের নিকটাত্মীয়দের নামে এসব সম্পদ করেছেন। তাই এসব সম্পদের তথ্য চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দেয়া হয়।

এআরই

 

খুলনা: আরও পড়ুন

আরও