খুলনায় নদীগর্ভে সড়ক, চলাচল বন্ধ

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

খুলনায় নদীগর্ভে সড়ক, চলাচল বন্ধ

খুলনা ব্যুরো ৯:৫১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৮

খুলনায় নদীগর্ভে সড়ক, চলাচল বন্ধ

স্থানীয় আতাই নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে খুলনার তেরখাদা উপজেলার সেনের বাজার-কালিয়া-বড়দিয়া সড়কের প্রায় আধা কিলোমিটার এলাকা। শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের পারহাজী গ্রামের নদী পাড়ের সড়ক নদীতে বিলীন হতে থাকে। শনিবার নাগাদ আধা কিলোমিটার এলাকা বিলীন হয়।

এদিকে, মূল সড়ক ভাঙনের কারণে পথচারী ও যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেয়ে গেছে। নদীর পাড়ে সড়কের বাকি অংশও বিলীন হওয়ার আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সড়কটির বিলীন হওয়া অংশটিতে ৪-৫ দিন আগ থেকে হালকা ফাটল দেখা দেয়। কিন্তু সড়কটি রক্ষায় কেউ এগিয়ে না আসায় শেষ রক্ষা হয়নি। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে সড়কটি নদীতে বিলীন হয়ে যায়। যে কোনো সময় নদী সংলগ্ন শতাধিক বসতবাড়িও নদীতে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক দিয়ে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। সড়কটি নদীতে বিলীন হওয়ায় মারাত্মক দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী। এমন অবস্থায় যদি কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েন, দ্রুত চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে আসাও অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

স্থানীয়রা জানান, তেরখাদা উপজেলা পারহাজী গ্রামের স্লুইস গেট এলাকায় সড়কের বেশ কিছু অংশ  ৪-৫ দিন আগে ফাটল ধরেছিল। ফাটলের পর থেকে সড়কে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। ঝুঁকি নিয়ে পায়ে হেঁটে মানুষ চলাচল করেছে। সময় মতো ব্যবস্থা গ্রহণ করলে হয়তো সড়কটি রক্ষা করা যেত। দ্রুত গাইডওয়াল স্থাপন করে সড়কটি নির্মাণের দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

সড়কটিতে নিয়মিত চলাচলকারী জিয়াউল হক মিলন বলেন, সড়কের প্রায় আধা কিলোমিটার জায়গা নদীগর্ভে চলে গেছে। এ সড়কটি বন্ধ হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছি আমরা।

তিনি অভিযোগ করেন, বছরখানেক আগে এলজিইডি’র তত্ত্বাবধানে রাস্তাটি করা হয়। যেভাবে করা উচিত ছিল সেভাবে না করায় আজকে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।

এলাকার বাসিন্দা মো. সেলিম বলেন, রাস্তা ভেঙে যাওয়ায় লোকজনের জেলা ও উপজেলার সাথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। বর্তমানে বিভিন্ন স্থানে নতুন করে ফাটল দেখা দেওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে এলকাবাসী। রাস্তার পাশের বাড়িঘরের মানুষজন নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন।

রাসেল নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, খুলনা শহরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীরা মালামাল আনতে পারছেন না।

ভাঙনকবলিত মধুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ মো. মহসিন বলেন, পারহাজী গ্রামের আতাই নদীতে এরইমধ্যে ৭০ মিটার সড়ক ভেঙে চলে গেছে। এতে সড়ক দিয়ে যানসহ মানুষের চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ভাঙন এলাকায় সরেজমিন পরিদর্শন করে স্থানীয় সংসদ সদস্যকে বিষয়টি জানিয়েছি। ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীরা ঘটনাস্থন পরিদর্শন করেছেন। তারা দু-এক দিনের মধ্যেই ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন। 

জেএইচ/এএল/