সড়ক অবরোধ করলো যুবলীগ, মামলার আসামি বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৮ কার্তিক ১৪২৫

সড়ক অবরোধ করলো যুবলীগ, মামলার আসামি বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা

যশোর ব্যুরো ১০:০১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০১৮

সড়ক অবরোধ করলো যুবলীগ, মামলার আসামি বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা

সাদা পোশাকে যুবলীগ নেতা তরিকুল ইসলামকে বাড়ি থেকে তুলে নেওয়া হয়। পাঁচদিন পর নড়াইলে পাওয়া যায় তার গুলিবিদ্ধ লাশ। এঘটনার প্রতিবাদে গত ৮ আগস্ট বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এমপিপুত্র রাজীব রায়ের নেতৃত্বে যশোর-নড়াইল সড়কে বিক্ষোভ করা হয়।

বিক্ষোভ যুবলীগের নেতাকর্মীরা করলেও নাশকতার মামলা দেওয়া হয়েছে বিএনপি-জামায়াতের ৪৮নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে।

অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে আরও ১০০-১৫০জন।

গত ৮ আগস্ট বাঘারপাড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবদুল মতিন মামলা দায়ের করেছেন। মামলার বিষয়টি শুক্রবার জানাজানি হলে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।

আসামিরা হলেন— বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক প্রকৌশলী টিএস আইয়ুব, বাঘারপাড়া পৌর বিএনপির আহ্বায়ক ও সাবেক মেয়র আব্দুল হাই মনা, বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী, জামায়াতের বাঘারপাড়া উপজেলা আমীর ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসির হায়দার, যশোর নগর জামায়তের সেক্রেটারি গোলাম রসুল, উপজেলা জামায়াতের সাবেক সেক্রটারি আব্দুল আলিম, পৌর জামায়াতের সেক্রেটারি খসরুল আলম মিন্টুসহ ৪৮ নেতাকর্মী।

জানা যায়, গত ৩ আগস্ট শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামকে সাদা পোশাকে তুলে নেওয়া হয়। তুলে নেয়ার ৫দিন পর ৮ আগস্ট বুধবার সকালে নড়াইলে তার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ওইদিন বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও এমপি রনজিৎ রায়ের ছেলে রাজিব রায়ের নেতৃত্বে যশোর-নড়াইল ও নড়াইল-খুলনা সড়ক ৩ ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করা হয়। যুবলীগের সড়ক অবরোধের সচিত্র সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিতও হয়েছে।

তবে সড়ক অবরোধের কারণ ও অবরোধে অংশ নেওয়া যুবলীগের নেতাকর্মীদের নাম বাদ দিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ৪৮ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত ১০০-১৫০জনের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে।

বাঘারপাড়া উপজেলা জামায়াতের আমির ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসির হায়দার বলেন, মামলায় উল্লেখ করা বিষয়ের সঙ্গে আসামিদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। অন্যায়ভাবে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা প্রকৌশলী টিএস আইয়ুব হোসেন জানান, পুলিশ প্রকৃত ঘটনা ও দোষীদের আড়াল করে উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপিয়েছে।

বাঘারপাড়া থানার ওসি মঞ্জুরুল আলম বলেন, নাশকতার অভিযোগে বিএনপি জামায়াতের ৪৮ নেতাকর্মীদের নামে মামলা হয়েছে। বিক্ষোভ করলো যুবলীগ, মামলা কেন বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা জানতে চাইলে ওসি কোনো উত্তর না দিয়ে বলেন, পরে আপনাকে ফোন দিচ্ছি।

পরে ওসিকে মোবাইল ফোনে কল দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

এসবি