ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ডিসির কাছে অনিয়মের অভিযোগ

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ডিসির কাছে অনিয়মের অভিযোগ

যশোর ব্যুরো ১০:০৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৮

ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ডিসির কাছে অনিয়মের অভিযোগ

যশোরের চৌগাছা উপজেলার বেড়গোবিন্দপুর বাঁওড় ব্যবস্থাপকের (ম্যানেজার) বিরুদ্ধে প্রকৃত মৎস্যজীবীদের বঞ্চিত করে ১১ প্রভাবশালীকে সরকারি বাঁওড় ইজারা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রভাবশালী মহল মৎস্যজীবীদের পানিতে নামতে দিচ্ছে না। এতে মানবেতর জীবনযাপন করছে তারা।

ভুক্তভোগী কার্ডধারী মৎস্যজীবীরা বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

এ সময় জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দিতে গিয়ে ভুক্তভোগীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

বেড়গোবিন্দপুর গ্রামের মৎস্যজীবী সঞ্জয় কুমার, বিকাশ কুমার, উজ্জল হালদারসহ অনেকে বাঁওড়টির ব্যবস্থাপনায় নানা অনিয়মের তথ্য তুলে ধরেন।

তাদের অভিযোগ, ২১৭ হেক্টর আয়তন বিশিষ্ট সরকারি বাঁওড়টি গোপনে স্থানীয় ১১ প্রভাবশালীর কাছে ইজারা দিয়েছেন ম্যানেজার ইমদাদ হোসেন। গত ১০/১২ দিনে বাঁওড় থেকে গোপনে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকার মাছ ধরে বিক্রি করা হয়েছে। প্রকৃত মৎস্যচাষিদের বাদ দিয়ে অন্যদের মাধ্যমে মাছ ধরা হচ্ছে। বংশ পরম্পরায় মৎস্যজীবীদের এখন বাঁওড়েই নামতে দেওয়া হচ্ছে না।

তারা আরও জানান, বাঁওড় পাড়ের দুই শতাধিক মৎস্যজীবী পরিবার মাছ উৎপাদন কাজে সাহায্য ও আহরণ করে জীবিকা নির্বাহ করে। বর্তমানে বাঁওড়টি লিজ দেওয়ায় তারা সবকিছু থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এ জন্য তারা মানবেতন জীবনযাপন করছেন। এসব বিষয়ে জেলা প্রশাসককে লিখিতভাবে জানিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

অভিযোগপত্রে এলাকার ৩২ জন কার্ডধারী মৎস্যজীবীর স্বাক্ষর রয়েছে। অভিযোগপত্রটি জেলা প্রশাসকের পক্ষে গ্রহণ করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হুসাইন শওকত।

তিনি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

আইআর/ এসএফ