ঝিনাইদহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবদল নেতা নিহত

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫

ঝিনাইদহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবদল নেতা নিহত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ৮:১১ পূর্বাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৮

ঝিনাইদহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবদল নেতা নিহত

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে রফিকুল ইসলাম ওরফে লিটন (২৯) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শনিবার দিনগত রাত একটার দিকে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের বড়দা জামতলায় বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

লিটন উপজেলার ১নং ত্রিবেনী ইউনিয়নের শেখপাড়া গ্রামের সাকিম উদ্দিন মোল্লার ছেলে এবং ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন।

পুলিশের দাবি, লিটন এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। মাদকের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে তিনি নিহত হয়েছেন।

শৈলকুপা থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, রাত একটার দিকে গুলির শব্দ শুনে টহল পুলিশ বড়দা জামতলা গিয়ে রাস্তার পাশে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে। পরে স্থানীয়রা তাকে লিটন বলে সনাক্ত করেন।

পুলিশের ধারণা, মাদক ব্যবসায়ীদের দু’পক্ষের গোলাগুলিতে লিটন নিহত হয়েছেন।

ঘটনাস্থল থেকে একটি শুটারগান, দুই রাউন্ড পিস্তলের গুলি, তিন রাউন্ড বন্দুকের গুলি, ৪০০ পিস ইয়াবা ও ১০ পিস ফেনসিডিল উদ্ধারের দাবি করেছে পুলিশ।


তবে শেখপাড়া গ্রামে লিটনের প্রতিবেশীরা জানান, আগে মাদকের ব্যবসা করলেও লিটন বিগত কয়েক মাস আগে তা ছেড়ে দিয়েছে। এখন সে এলাকায় ট্রাকের ব্যবসা করছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে তাকে আটক করে পুলিশ।

এই বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু।

এক বিবৃতিতে তিনি ত্রিবেনী ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন মোল্লাকে বিচারবহির্ভূতভাবে হত্যার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান।

একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন জয়ন্ত কুমার কুন্ডু।

শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন এবং লিটনের এতিম দুই কন্যা সন্তানদের পাশে বিএনপি পরিবার থাকবে বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি।

এইচএএস/এএস