ভাষা দিবসে বেড়েছে গদখালীর ফুলের চাহিদা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫

ভাষা দিবসে বেড়েছে গদখালীর ফুলের চাহিদা

যশোর ব্যুরো ৯:১০ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৮

ভাষা দিবসে বেড়েছে গদখালীর ফুলের চাহিদা

’সালাম রফিক উদ্দীন জব্বার কী বিষণ্ন থোকা থোকা নাম’ কবির পংক্তির সে বিষণ্ন নামগুলিকে প্রতিবছর স্মরণ করে বাঙালি। ভাষা শহীদদের অমর একুশের দিনে জানাই শ্রদ্ধাঞ্জলি। এ জন্য হৃদয়ের গভীরতম দরদের জায়গা থেকে শহীদ মিনারের বেদি ফুলে ফুলে ঢেকে দেয় সকলে।

এই প্রয়োজনীয় ফুল সংগ্রহ করতে সবাই তৎপর থাকে। ফুলের জন্য বিখ্যাত যশোরের গদখালী। এটাকে ফুলের রাজধানীও বলা হচ্ছে। অমর একুশে উপলক্ষে এখানকার ফুলচাষিরা এবার ২০ কোটি টাকার ফুল বিকোবেন বলে তাদের প্রত্যাশা।

ইতোমধ্যে সারাদেশে ফুল সরবরাহ করছেন তারা। অবশ্য সারাদেশে এর পরিমাণ ৫০ কোটি টাকা ছাড়াবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা।

২০১৭ সালে গদখালীতে ৩৫ কোটি টাকার ফুল বিকিকিনি হয়। নতুন জাতের আগমন ও অনুকূল পরিবেশের কারণে এবছর ফুল বেচাকেনা আরও বাড়বে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।

বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে গোলাপ, গাঁদা, রজনীগন্ধা, গ্ল্যাডিওলাসসহ নানা রঙের ফুল। চোখ ধাঁধানো এই সৌন্দর্য কেবল মানুষের হৃদয়ে অনাবিল প্রশান্তিই আনে না, ফুল চাষ সমৃদ্ধিও এনেছে অনেকের জীবনে। ফুলেল স্নিগ্ধতায় এখন ব্যস্ত সময় কাটছে তাদের। যেন দম ফেলার ফুসরত নেই।

ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি ফুল ব্যবসার মৌসুম বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। এ মাসের বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠান ঘিরে ফুলের ব্যবহার বাড়ে। তবে এবার অন্য বছরগুলোর চেয়ে ফুলের চাহিদা, দাম একটু বেশি বলেই জানিয়েছেন  ব্যবসায়ীরা।

১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসের পর বিশেষ করে আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসকে  কেন্দ্র করে পুরোদমে জমে উঠেছে ফুলের রাজধানী খ্যাত যশোরের ঝিকরগাছার গদখালী বাজার।

প্রতিদিন এই ফুলের বাজার থেকে বিভিন্ন জাতের ফুল পাইকারদের হাত ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে যাচ্ছে।

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবছর গোলাপের নতুন জাত লং স্টিক রোজও বিক্রি বেড়েছে।

লং স্টিক রোজ ফুল চাষি ইনামুল হোসেন বলেন, আমার ক্ষেত্রের এক একটি গোলাপ ২০ থেকে ২৫ টাকা করে বিক্রি করছি। এই ফুলটি দীর্ঘদিন থাকে বলে তার কদর রয়েছে।

ফুল চাষি ও ব্যবসায়ীরা জানান, ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে তারা প্রত্যাশার চেয়ে বেশি ফুল বিক্রি করলেও দাম কিছুটা কম ছিলো। তবে আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসকে সামনে রেখে গোলাপ, গাদা, গ্লাডিউলাসসহ কয়েকটি ফুলের দাম বেড়ে যাওয়ায় ব্যাপক লাভের আশা করছেন তারা।

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটি সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন, সারা দেশেই কমবেশি ফুল উৎপাদন হয়। তবে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ হয় যশোরে। তাই ভাষা দিবস ঘিরে ফুলের রাজধানীতে ১৫ থেকে ২০ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হবে বলে আশা এই ব্যবসায়ীর নেতার।

যশোর ঝিকরগাছা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দীপঙ্কর দাস বলেন, আমরা ফুল চাষে কৃষকদের আগ্রহী করতে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। কৃষকরা ফুল চাষ করে লাভবান হচ্ছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে ফুল চাষে সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।

আইআর/বিএইচ/