আসামে ঐতিহাসিক মিনার রক্ষায় এক কাতারে হিন্দু-মুসলিম

ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

আসামে ঐতিহাসিক মিনার রক্ষায় এক কাতারে হিন্দু-মুসলিম

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৩৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৮, ২০১৯

আসামে ঐতিহাসিক মিনার রক্ষায় এক কাতারে হিন্দু-মুসলিম

ভারতের আসামে নগাঁওয়ে হাইওয়ের পাশে প্রায় দুই শতাব্দী ধরে দাঁড়িয়ে আছে পুরানিগুদাম মিনার। এর মধ্যে একটি মসজিদও রয়েছে। প্রাচীন এই মিনারটি ধর্মের সীমা পেরিয়ে কখন যেন এলাকার হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে সকল মানুষের অস্তিত্বের সঙ্গেই জড়িয়ে গেছে।

তাই জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণের জন্য মিনার ভাঙ্গার কথা উঠতেই একযোগে প্রতিবাদে গর্জে উঠল হিন্দু-মুসলিম উভয় সম্প্রদায়। তাদের উদ্যোগেই শেষ পর্যন্ত রক্ষা পেল মিনার।

১৮২৪ সালে তৈরি হয় পুরানিগুদাম মিনার। ২০১৫ সালে প্রথম মিনারটি ভেঙ্গে ফেলার কথা ওঠে। হিন্দু-মুসলিম ভেদাভেদ ভুলে মিনার রক্ষায় এগিয়ে আসে সবাই। কিন্তু মিনার বাঁচানো সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয় জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় ক্রাউড ফান্ডিং, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার।

অবশেষে তাদের আন্দোলন হরিয়ানার একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্মের নজরে আসে। তাদের সহযোগিতায়ই বিশেষ প্রযুক্তির সাহায্যে ভিত থেকে তুলে ৭০ ফুট সরানো হচ্ছে মিনারটিকে।

এই কাজে খরচ পড়ছে আট লক্ষ টাকা। প্রশাসন নয়, পুরোটাই সাধারণ মানুষের উদ্যোগে সম্ভব হয়েছে বলে জানালেন স্থানীয় বাসিন্দা চিত্তরঞ্জন বোরা। তিনিই প্রথম মিনার ভাঙ্গার বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার কাজে সক্রিয় হন।

এমএফ/

আরও পড়ুন...
অমুসলিমদের সঙ্গে লেনদেনে হোক উত্তম আচরণ
অমুসলিমদের প্রতি ইহসান প্রদর্শনে ইসলামের নির্দেশ
মক্কা বিজয় ও একটি প্রেমের সমাধি
অমুসলিম ব্যক্তিকে দান করা ও হাদিয়া দেওয়া কি নিষেধ?