ইয়েমেন: রাজধানী সান’আর পুরনো শহরে শরণার্থীরা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫

ইয়েমেন: রাজধানী সান’আর পুরনো শহরে শরণার্থীরা

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:১৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৮, ২০১৮

ইয়েমেন: রাজধানী সান’আর পুরনো শহরে শরণার্থীরা

পুরাতন সান’আর ধ্বংসস্তূপে খেলাধুলা করছে দুই বোন ঈমান ও আমানী।

গৃহযুদ্ধের চতুর্থ বছরে ছিন্ন ভিন্ন হয়ে পড়েছে আরব উপদ্বীপের দরিদ্রতম দেশ ইয়েমেন। দেশটিতে বসবাস করা অধিকাংশ লোকেরই বর্তমানে মানবিক সহায়তার প্রয়োজন।

২০১৫ সালের মার্চে গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৬০ হাজারের অধিক ইয়েমেনি নিহত ও আহত হয়েছে এবং ৩০ লক্ষ লোক উদ্বাস্তুতে পরিণত হয়েছে। আহতদের মধ্যে বহু সংখ্যক তো বাকি জীবনের জন্য স্থায়ী পঙ্গুত্ব বরণ করে নিয়েছে।

এ নিবন্ধে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের রাজধানী সান’আর পুরাতন শহরের কিছু আলোকচিত্র তুলে ধরা হলো। জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর এর সৌজনে কাতারভিত্তিক সংবাদ সংস্থা আল জাজিরা এই চিত্রগুলো প্রকাশ করেছে।

পুরাতন সান’আয় ঠেলাগাড়ি থেকে মালামাল নামাচ্ছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মুহাম্মদ আলী। যুদ্ধের ভয়াবহতায় পরিবারের ১০ সদস্যের সাথে তিনি ইয়েমেনের উত্তরে সউদি সীমান্তবর্তী সা’দা প্রদেশের নিজ বাড়ি থেকে পালিয়ে আসেন তিনি।

পুরাতন সান’আয় ভাড়া করা ঘরের প্রবেশপথে বসে থাকা ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধা কাফিয়া।

 স্কুলের ফাঁকে ফাঁকে পুরাতন সান’আর বাজারে নেকলেস বিক্রয়রত তের বছর বয়সী জামাল মাহমুদ।

পুরাতন সান’আর চিলেকোঠা থেকে তায়েজের নিজ বাড়িতে ফিরে যাওয়ার প্রত্যাশায় আহমেদ সালেহ আলী।

গ্রাহকের প্রতীক্ষায় মাহমুদ মুহাম্মদ (বামে) এবং তার সাথীর প্রতীক্ষা। তার ‍মাল বহনের কাজ দিয়ে তার পরিবারের পাঁচ সদস্যের জীবিকা, দুই সন্তানের চিকিৎসাসহ সকল খরচ বহন করতে হিমশিম খাচ্ছেন।

তের বছরের কিশোর আলী আবদুল কাদের তার ধ্বংসপ্রাপ্ত পুরনো বাড়ির সামনে দণ্ডায়মান। যুদ্ধে তার বাড়ি ধ্বংস হলে সে তার পিতা, ভাই, চাচা ও চাচী; পরিবারের চারজন সদস্যকে হারায়।

পুরাতন সান’আয় যুদ্ধে ধ্বংসপ্রাপ্ত প্রতিবেশীর বাড়িতে ভ্রমণরত তিন ভাই-বোন, মুহাম্মদ, বাতুল এবং লুয়াই আলী যায়েদ।

সুত্র: আল জাজিরা

এমএফ

আরও পড়ুন...
ছবিতে ইয়েমেনের ধ্বংসস্তূপের বাসিন্দারা
সিরিয়া যুদ্ধের অতীত থেকে বর্তমান; একটি রাজনৈতিক বিশ্লেষণ