ভারতে বিভিন্ন স্থানের ইসলামী নাম পরিবর্তনের দাবী হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোর

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ভারতে বিভিন্ন স্থানের ইসলামী নাম পরিবর্তনের দাবী হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোর

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:১১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০২, ২০১৮

ভারতে বিভিন্ন স্থানের ইসলামী নাম পরিবর্তনের দাবী হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোর

ভারতে উত্তর প্রদেশ রাজ্যের ঐতিহাসিক এলাহাবাদ শহরের নাম পরিবর্তন করে সম্প্রতি প্রয়াগরাজ করা হয়। এরপর থেকে প্রদেশটির উগ্রবাদী বিভিন্ন সংগঠন এপ্রদেশের বিভিন্ন শহর ও জেলার নাম পরিবর্তনের দাবি করেছে। বহু শতাব্দী পূর্বে মুসলিম সুলতান ও মুঘল সম্রাটদের দেওয়া এই নামগুলো পরিবর্তন করে নতুন করে হিন্দুত্ববাদী স্বরের নাম রাখার দাবি জানাচ্ছে তারা।

আজমগড়ের নাম পরিবর্তন করে আরইয়ামগড়, ফয়েজাবাদকে পরিবর্তন করে সিকেত, আলীগড়কে হরিগড় এবং মুযাফফরনগরকে লক্ষ্মীনগর ইত্যাদি নাম তারা প্রস্তাব করছে।

আলীগড়ে ইতোমধ্যেই ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতা-কর্মীরা তাদের যানবাহনের লাইসেন্স প্লেটে এই স্থানের নাম ‘হরিগড়’ লিখছে।

বিজেপির মুযাফফরনগর জেলার প্রেসিডেন্ট সুধির সাইনী বলেন, “হিন্দু সংঠনগুলো মুযাফফরনগরের নাম পরিবর্তনের দাবি জানাচ্ছে, কেননা তারা বিশ্বাস করে এই স্থানটির নাম আগে ছিল লক্ষ্মীনগর।”

প্রদেশটির রাজধানী লখনৌ নাম পরিবর্তন করার বিষয়ে বিহারের বর্তমান গভর্নর এবং উত্তর প্রদেশের নেতা লালাজি টেন্ডন তার গ্রন্থ ‘আনকাহা লখনৌ’ (অকথিত লখনৌ) এ পরামর্শ প্রদান করেন।

বইটিতে বলা হয়, “লখনৌ মূলত লক্ষনাবতী, লক্ষনপুর এবং লাখনাবতী নামে পরিচিত ছিল। পরবর্তীতে এর নাম হয় লখনৌ।”

উত্তর প্রদেশ সরকার এই বিষয়গুলো বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী ও সরকারের মুখপাত্র সিদার্থনাথ সিং বলেন, “এই বিষয়গুলো গবেষণার জন্য সরকার ব্যবস্থা গ্রহন করবে। নাম পরিবর্তনের এই দাবিগুলো আমরা বিবেচনা করবো।”

সিদ্ধার্থনাথ সিং হলেন ঐতিহাসিক এলাহাবাদের নাম পরিবর্তনের আহবায়ক, যিনি এই বিষয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং গর্ভনর রাম নায়েকের কাছে দরখাস্ত করেন।

হিন্দুত্ববাদী নেতারা বলছেন, মুঘল এবং ব্রিটিশরা ভারতীয় সংস্কৃতিকে লক্ষ্য করে বিভিন্ন শহরের নাম কৌশলগতভাবে পরিবর্তন করে রেখেছিল। এই নামগুলো এখন পরিবর্তন করে তাদের দাবি অনুযায়ী পূর্বের নামে এই শহরগুলোর নামকরনের দাবি জানায় তারা।

হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএসের অযোধ্যা শাখার নেতা প্রভু নারায়ন বলেন, “দাসত্বের চিহ্ন বহনকারী নাম পরিবর্তন করে দেশপ্রেমিকদের নামে নামকরণ করা উচিত।”

এবছরের আগস্টে যোগী সরকার প্রথম উত্তর প্রদেশের মুঘল সরাই শহর ও রেলওয়ে জংশনের নাম পরিবর্তন করে বিজেপির তাত্ত্বিক, দীন দয়াল উপাধ্যায়ের নামে নামকরণ করে। সম্প্রতি এই পরিবর্তন ঘটলো এলাহাবাদের ক্ষেত্রে।

এলাহাবাদের বাসিন্দা এডভোকেট এস ফারমান নকভী বলেন, “সাধারণ লোকদের সাথে এই বিষয়ে কোন আলোচনাই করা হচ্ছে না। এর অর্থ কেউ পেছন থেকে এলাহাবাদের মানুষের ভবিষ্যতের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত প্রদান করছে। গোরাখপুরের উর্দুবাজারের নাম পরিবর্তন করে মুখ্যমন্ত্রী এর নাম রেখেছেন হিন্দীবাজার। নিশ্চিতভাবে তিনি সাম্প্রদায়িক কর্মসূচি নিয়ে এগোচ্ছেন।”

সুত্রঃ হিন্দুস্তান টাইমস

এমএফ/