নিখুঁত পরিকল্পনাগুলোও কেন ভেস্তে যায়!

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নিখুঁত পরিকল্পনাগুলোও কেন ভেস্তে যায়!

নাবিলা আফরোজ জান্নাত ২:০৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯

নিখুঁত পরিকল্পনাগুলোও কেন ভেস্তে যায়!

জীবনের একটা বড় অংশ কেটে গেছে পরিকল্পনা করতে করতে। বয়স যখন ১৮, তখন একটা তালিকা করেছিলাম, জীবনে কী কী করতে চাই এবং টা কত সময়ের মধ্যে।

এরপর বেশ কতগুলো বছর পেরিয়ে এসে এখন জীবনের পেছনে ফিরে তাকালে দেখি, পরিকল্পনা মতো অনেক কিছুই এগোয়নি। বুঝতে পারি, সবকিছুর জন্য পরিকল্পনা করলেই হয়ে যায় না। পরিকল্পনা মত সব আগায় না।

আসলে আমরা যা চাই, তার সবই পরিকল্পনা করতে পারি, কিন্তু পরিকল্পনা তো আল্লাহও করেছেন।

আমরা প্লান করি জীবনে সফল হওয়ার, ধনী ও জ্ঞানী হওয়ার। এমনকি কেউ আমাকে ভালবাসুক, এমনও চিন্তা আমাদের পরিকল্পনায় থাকে। কিন্তু মন খারাপের প্ল্যান আমরা কেউ করি না, হেরে যাওয়ারও না, অথবা এটাও না যে আমার প্ল্যানগুলো সব লণ্ডভণ্ড হয়ে যাক।

অথচ হয়। কখনো সব পরিকল্পনা মুহূর্তেই শেষ যায়।

মানুষ হিসেবে আমরা ভাবতে পছন্দ করি যে সবকিছু আমার নিয়ন্ত্রণে আছে। আসলে তো না, নিয়ন্ত্রণকারী হচ্ছেন আল্লাহ।

আমার চারপাশে এমন দেখতে পাই। আমার ক’জন চাচা-মামা আছেন, যাদের বয়স চল্লিশ পেরিয়ে গেছে, অবিবাহিত। কিন্তু নিজেদের জীবনে এমন হোক, তা তাঁরা চাননি।

আল্লাহ এটাই তাঁদের জন্য পরিকল্পনা করে রেখেছিলেন।

এমন মানুষের সংখ্যাও কি কম যাঁরা অনেক বছর ধরে বিবাহিত কিন্তু নিঃসন্তান? এটা তাঁদের পরিকল্পনা ছিলো না কিন্তু আল্লাহর প্ল্যান ছিলো।

আমার আপনার পরিচিত এমন অনেক গ্র্যাজুয়েটই আছে যাঁরা অনেক পরিশ্রম করেও ভালো কোনো চাকরি পাচ্ছে না অথবা একদমই বেকার। জীবনে এমন তো তাঁরা চায়নি।

কিন্তু আল্লাহর পরিকল্পনা এটা।

সমাজ খুব দ্রুত আপনার দিকে আঙ্গুল তাক করা শুরু করে। যে ছেলেটার চাকরি হচ্ছে না, তার মানে এই না যে সবটাই তাঁর আলসেমি, এটা আল্লাহর প্ল্যানেরই অংশ। যে ছেলেটা বিয়ে করছে না, মানে তো এটা না-ও হতে পারে যে সে আসলেই বিয়ে করছে না। মানে এটা যে আল্লাহ তাঁর বিয়ের জন্য যেই সময়টা নির্ধারণ করে রেখেছেন, সে সময়টা এখনো আসেনি। এক দম্পতি নিঃসন্তান মানে তো এরকম না-ও হতে পারে যে তাঁরা ক্যারিয়ার, চাকরিকেই বেশী প্রাধান্য দিচ্ছে।

আলী রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেছিলেন, “কোনো ব্যাপারে আমার সবটুকু দিয়ে চেষ্টা করার পরও যখন তা হয় না, তখন আল্লাহর শক্তিকে আমি সবচেয়ে বেশী অনুভব করি।”

সবসময়ই আপনার পরিকল্পনার চেয়ে দৃঢ় একটা শক্তি আছে যা আপনার পরিকল্পনাকে বাধা দিতে পারে। আপনি যতই পরিকল্পনা করুন না কেন, যত চেষ্টাই করুন না কেন, আল্লাহর পরিকল্পনার সামনে আপনার পরিকল্পনা বিবর্ণই।

মাঝেমধ্যে জীবনের এতোসব সমস্যা একসাথে ঘিরে ধরে, বুঝতে কষ্ট হয়, মানতে কষ্ট হয়। ভেঙ্গে পড়ি।

কিন্তু এইসময় মনে রাখা দরকার, আল্লাহ সবচেয়ে উত্তম পরিকল্পনাকারী।

সুতরাং, আমরা যতোই কোনোকিছুকে আমাদের জন্য ভালো ভাবি না কেন, আল্লাহ বলে দিয়েছেন,

عَسَى أَن تَكْرَهُواْ شَيْئًا وَهُوَ خَيْرٌ لَّكُمْ وَعَسَى أَن تُحِبُّواْ شَيْئًا وَهُوَ شَرٌّ لَّكُمْ وَاللّهُ يَعْلَمُ وَأَنتُمْ لاَ تَعْلَمُونَ

“তোমাদের কাছে হয়তো কোন একটা বিষয় পছন্দসই নয়, অথচ তা তোমাদের জন্য কল্যাণকর। আর হয়তোবা কোন একটি বিষয় তোমাদের কাছে পছন্দনীয় অথচ তোমাদের জন্যে অকল্যাণকর। বস্তুতঃ আল্লাহই জানেন, তোমরা জান না।” [সূরা আল বাকারাহ, আয়াত ২১৬]

হ্যাঁ, আমরা আসলেই জানি না।

পেছনে ফিরে তাকান, জীবনে এমন অনেক কিছুই আছে, যা পাওয়ার জন্য আপনি খুব চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু পাননি। অথচ এখন আপনি ভালো আছেন। যা পেয়েছেন, তা অবশ্যই আপনার সেই চাওয়ার চেয়ে ভালো, আপনি বুঝতে পারেন বা না-ই পারেন।

কেনো আমার সেই চাওয়াটুকু আমার জন্য ভালো ছিলো না? এই প্রশ্নের উত্তর অনেক ক্ষেত্রেই আখিরাত ছাড়া হয়তো আমরা পাবো না।

সহ্য করতে মাঝে মাঝে আপনার খুব কষ্ট হয়। “এতো করে চাচ্ছি, কিন্তু হচ্ছে না”। ওপাশ থেকে দরজাটা বন্ধই। নিরাশা চারপাশ থেকে ঘিরে ধরছে।

এইসমস্ত পরিস্থিতির ভেতরের কল্যাণ বুঝার জন্য খুব গভীর জ্ঞান প্রয়োজন। বুঝতে না পারলেও আল্লাহর কাছেই আত্মসমর্পণ করতে হবে। সবর করতে হবে। এটুকু জানতে হবে, ভালো’র জন্যই হচ্ছে। আল্লাহর পরিকল্পনায় আস্থা রাখুন।

জানেন, সত্যিকারের প্রশান্তি আপনি তখনই পাবেন।

মনে রাখতেই হবে, জীবনের প্রতিটা মুহূর্তে আল্লাহই আপনার সাথে আছেন, আপনাকে সুরক্ষা দিচ্ছেন, মায়ের চেয়েও বহুগুণ বেশী ভালোবাসছেন আপনাকে।

আমাদের কাজ হলো, বিশ্বাস রাখা তাঁর উপর। একটা দীর্ঘশ্বাসের পরও, “তাওয়াক্কালতু আলাল্লাহ”।

যা-কিছুই হোক, আপনি তবুও পরিকল্পনা করুন, আবারও স্বপ্ন দেখুন, খুব ভালো কিছুর আশা রাখুন। কিন্তু তাঁর উপর দৃঢ় বিশ্বাস রাখুন। মনে রাখুন, তাঁর পরিকল্পনাই আপনার জন্য সবচেয়ে কল্যাণের।

জীবনে আপনি নিজেকে যেখানে দেখতে চেয়েছিলেন, সেখানে হয়তো নেই, কিন্তু আল্লাহ আপনাকে যেখানে রাখতে চেয়েছিলেন, আপনি সেখানেই আছেন।

এমএফ/

 

বিবিধ: আরও পড়ুন

আরও