দ্বৈত কর পরিহারে বাংলাদেশ-মালদ্বীপ একমত

ঢাকা, ১৩ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

দ্বৈত কর পরিহারে বাংলাদেশ-মালদ্বীপ একমত

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৮:১৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

দ্বৈত কর পরিহারে বাংলাদেশ-মালদ্বীপ একমত

দ্বিপক্ষীয় ব্যবসায়-বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদার এবং বিনিয়োগ সম্প্রসারণে দ্বৈত কর পরিহারে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপ। শিগগিরই এ বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ চুক্তি স্বাক্ষর হবে।

বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সিনিয়র তথ্য অফিসার সৈয়দ এ মু’মেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে দ্বৈত কর পরিহার চুক্তি সম্পাদনের লক্ষ্যে দ্বিতীয় দফা আলোচনা বুধবার বিসিএস (কর) একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে ২০১৭ সালে দুই দেশের মধ্যে এ বিষয়ে দ্বৈত কর পরিহারে সম্মত রাজধানী মালেতে প্রথম দফা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। আজকের বৈঠকে দুদেশ চুক্তি স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে।

জানা গেছে, দুই দেশের অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার ও বিনিয়োগ বাড়াতে এ চুক্তি সম্পাদন একান্ত প্রয়োজন। দ্বৈত কর পরিহার চুক্তি সম্পাদিত হলে মালদ্বীপের সাথে বাংলাদেশের বিনিয়োগের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হবে।
একইভাবে বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীরাও মালদ্বীপে বিনিয়োগ করতে উৎসাহী হবেন। একই আয়ের উপর দুই দেশে কর পরিহার করাই এ চুক্তি সম্পাদনের লক্ষ্য। চুক্তি সম্পাদনের পর বিনিয়োগকারীকে একই অর্থ বা আয়ের জন্য দুই দেশে আর কর দিতে হবে না।

একই ব্যক্তি বা সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের আয়ের ওপর যাতে দুই দফা কর দিতে না হয়, সে লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী দ্বিপক্ষীয় ভিত্তিতে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে দ্বৈত কর পরিহার চুক্তি হয়ে থাকে। বর্তমানে ৩৫টি দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের এ ধরনের চুক্তি রয়েছে। বাংলাদেশের সাথে মালদ্বীপের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অত্যন্ত গতিশীল। বিশেষ করে মালদ্বীপের শ্রম বাজারের বৃহৎ অংশে বাংলাদেশের শ্রমিকদের অংশগ্রহণ রয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় এক লাখ শ্রমিক মালদ্বীপে কাজ করছে। যা মালদ্বীপের মোট জনসংখ্যার প্রায় এক চতুর্থাংশ।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পক্ষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এর সদস্য (আন্তর্জাতিক কর) আরিফা শাহানা এবং মালদ্বীপের পক্ষে সেদেশের অভ্যন্তরীণ রাজস্ব প্রশাসনের ডেপুটি কমিশনার জেনারেল হাসান জারীর নেতৃত্ব দেন।

এছাড়া মালদ্বীপ প্রতিনিধি দলে অমিনাথ জুমরা ও আসমা সাফিউ অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে বৃহৎ করদাতা ইউনিটের (কর) কমিশনার অপুর্ব কান্তি দাস, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রথম সচিব (কর) খন্দকার খুরশীদ কামাল, আসমা দিনা গনি ছাড়াও কর বিভাগের কর্মকর্তা হাফিজ আল আসাদ, আব্দুর রাজ্জাক, সরদার মো. আবু হেলালসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুদানা ইকরাম চৌধুরী অংশগ্রহণ করেন।

এফএ/এইচআর

 

আমদানি-রপ্তানি: আরও পড়ুন

আরও