মুরগির দাম বাড়লেও সবজির দর স্থিতিশীল

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯ | ১১ চৈত্র ১৪২৫

মুরগির দাম বাড়লেও সবজির দর স্থিতিশীল

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:৪৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

মুরগির দাম বাড়লেও সবজির দর স্থিতিশীল

হঠাৎ করেই বাড়তে শুরু করেছে ফার্মের মুরগির দাম। গত সপ্তাহেও প্রতিকেজি ফার্মের মুরগি ১১৫ থেকে ১২০ টাকায় কেজিতে বিক্রয় হলেও আজ শুক্রবার ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকায় বিক্রয় হচ্ছে। রাজধানীর রামপুরা ও মেরাদিয়া বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বিক্রেতারা বলছেন, মঙ্গলবার থেকে বাড়তে শুরু করেছে ফার্মের মুরগির দাম। তবে, সোনালী, পাকিস্তানি কক ও দেশি মুরগির দাম অপরিবর্তত রয়েছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, গরুর মাংস ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। খাসির মাংস পাওয়া যাচ্ছে ৭২০ থেকে ৮০০ টাকায়, দেশি মুরগি হালি ১ হাজার থেকে ১২ শত টাকায়, পাকিস্তানি কক কেজি ২২০ থেকে ২৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, বাজারে শীতকালীন সবজির সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকায় দামও অপরিবর্তত রয়েছে। শীতকালীন সবজি ফুলকপি প্রকারভেদে ১০ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। টমেটো ৬০ থেকে ৮০ টাকায়, শালগম ৪০ টাকা, নতুন আলু ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়, গাজর ৪০ টাকায় বিক্রয় হচ্ছে।

প্রকারভেদে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩৫ টাকায়, বেগুন ১০ থেকে ২৫ টাকায়, বাঁধাকপি ৩০ টাকা, ক্ষিরা ৪০ টাকা, পেয়াজ কলি ৩৫ টাকা, কচুমুখী ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া লাউ প্রকারভেদে ২৫ থেকে ৫০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ টাকায়, ঝিঙা ৪০ টাকায়, কাঁকরোল ৩০ টাকায়, পেঁপে ১৫-২৫ টাকায়, কচুর লতি কেজি ৫০ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, শষা ২০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রকারভেদে প্রতিটি ৩৫-৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া পালং শাক প্রতি আটি ১০ টাকা, পুঁইশাক প্রতি আঁটি ২০ টাকা, লালশাক ১০ টাকা, কলমি শাক ১০ টাকা, লাউ শাক ২৫ থেকে ৩০ টাকা, লেবুর হালি ২০-২৫ টাকা, কাচা মরিচ ৪০ থেকে ৮০ টাকা, ধনেপাতা ৬০ থেকে ৯০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে দেশি কই, বোয়াল, কাজলী বা টেংরা কিনতে হলে গুণতে হচ্ছে ২২০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা, বড়-মাঝারি রুই, কাতল বা মৃগেল ২২০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত দামে বিক্রি হচ্ছে।

মাছের বাজারে প্রতি কেজি তেলাপিয়া, পাঙ্গাস বা সিলভারের মত মাছ ১২০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা দরে কেজি। এছাড়া, চিংড়ি মাছ ৪৫০ থেকে ৮০০ টাকা, পাবদা ৬০০ টাকা, সুরমা মাছ ৮০০ টাকা কেজিতে বিক্রয় হচ্ছে।

এদিকে, চালের বাজার রয়েছে স্থিতিশীল। মোটা চাল বিক্রয় হচ্ছে ৩৮ থেকে ৪৫ টাকা, পাইজাম ৪৬ থেকে ৫০ টাকা, মিনিকেট ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, নাজির ৫৬ থেকে ৬০ টাকা।

এদিকে, লুজ সয়াবিন তেল ৮০ থেকে ৮৪ টাকা কেজিতে বিক্রয় হলেও বোতলের সোয়াবিন প্রকার ভেদে ১০৬ থেকে ১০৮ টাকায় বিক্রয় হচ্ছে।

জেডএস/এসবি