কাঁচা মরিচের দাম দ্বিগুণ হলেও সবজির বাজার স্বাভাবিক

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫

কাঁচা মরিচের দাম দ্বিগুণ হলেও সবজির বাজার স্বাভাবিক

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:২৫ অপরাহ্ণ, জুন ৩০, ২০১৮

print
কাঁচা মরিচের দাম দ্বিগুণ হলেও সবজির বাজার স্বাভাবিক

রমজানে যে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা ঈদের পর সেই কাঁচা মরিচ এখন বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা করে। শুধু মরিচ না, বেড়েছে টমেটোর দামও। তবে বাজারে মরিচ ও টমেটোর দাম বাড়লেও সবজির দাম মোটামুটি স্বাভাবিক রয়েছে।

শনিবার রাজধানীর মিরপুরের একাধিক কাঁচাবাজার ঘুরে এমন চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।

মিরপুর-১১ এর কাঁচাবাজারে দোকানিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, কাঁচা মরিচ মানভেদে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। আর টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি দরে।

এ ব্যাপারে জুয়েল নামের এক বিক্রেতা পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, কাঁচা মরিচের দাম দুইদিন ধরে বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৬০ টাকা করে বিক্রি করেছি আর আজকে পাইকারি আড়ৎ থেকে কিনে এনেছি ১১০ টাকা করে। এ ছাড়া টমেটোর দামও বেড়ে গেছে।

এ ছাড়া কাঁচা বাজারে ঢেঁড়শ ৪০ টাকা কেজি, পটল ৩০ টাকা কেজি, কাকরোল কেজি প্রতি ৪০ টাকা, করোলা ৪০ টাকা, বেগুন লম্বা ও গোল ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি, কুমড়া ২৫ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, পেঁপে ২৫ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

আর আলু কেজি প্রতি ২৪ টাকা, ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ ৩০ টাকা, দেশি পেঁয়াজ ৪৫ টাকা, চিনি ৬০ টাকা, ছোলা ৭০ টাকা, ইন্ডিয়ান মসুরের ডাল ৬০ টাকা, হাইব্রিড ৮০ টাকা এবং দেশি মসুরের ডাল ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া লাল শাকের আঁটি ১০ টাকা, পাট শাক ১০ টাকা, কলমি শাক ১০ টাকা, ডাটা শাক ১০ টাকা আর লাউ শাকের ডাটা ৩০ করে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, বাজারে পাইকারি মিনিকেট চাল বস্তাপ্রতি (৫০ কেজি) ২৪৫০ টাকা থেকে ২৫৫০ টাকা, মোটা চাল বস্তাপ্রতি ১৯০০ টাকা, আঠাশ চাল ২০০০ টাকা, নাজিরশাইল চাল ইন্ডিয়ান বিক্রি হচ্ছে ২৭০০ টাকা ও দেশি নাজিরশাইল বিক্রি হচ্ছে ২৮০০ টাকা বস্তাপ্রতি।

চালের দাম বেড়েছে কিনা জানতে চাইলে মিরপুর-১১ এর পাইকারি বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান মারজুক রাইস এজেন্সির দোকানি সোহেল হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, চালের দাম কেজিতে ২ থেকে ৩ টাকা করে বেড়েছে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, নতুন বাজেটে ২৮ শতাংশ আমদানি চালে শুল্কাআরোপ করায় দাম বেড়েছে।

এদিকে খুচরা বাজারে দেখা যায়, মিনিকেট চাল ৫৬ থেকে ৫৮ টাকা করে কেজি, মোটা চাল ইন্ডিয়ান ৪২ টাকা, দেশি মোটা চাল ৪৩ থেকে ৪৪ টাকা, আঠাশ চাল ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা করে কেজি, চিনিগুড়া চাল ৮৫ থেকে ৯০ টাকা, নাজিরশাইল দেশি ৬৫ টাকা, ইন্ডিয়ান নাজিরশাইল গত সপ্তাহে ৫২ টাকা করে থাকলেও এখন ৫ থেকে ৭ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৫৮ থেকে ৬০ টাকা।

খুচরা চাল বিক্রিতা তৌহিদুল ইসলাম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আমদানি চালে ভ্যাট বাড়ায় কেজিতে প্রতিটি চালের দাম দুই-তিন টাকা করে বেড়ে গেছে।

টিএটি/আরপি

 
.



আলোচিত সংবাদ