গতবারের তুলনায় মেলায় রফতানি আদেশ বেড়েছে ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র ১৪২৫

গতবারের তুলনায় মেলায় রফতানি আদেশ বেড়েছে ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৪, ২০১৮

print
গতবারের তুলনায় মেলায় রফতানি আদেশ বেড়েছে  ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা

এবারের বাণিজ্য মেলা শেষে রফতানি আদেশ এসেছে ২০ মিলিয়ন ডলার বলে জানালেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। যা টাকার হিসেবে ১৬৬ কোটি ২৪ লাখ।

রোববার মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

ইপিবি সূত্রে জানা গেছে, গতবারের মেলায় (২০১৭) রফতানি আদেশ এসেছিল ১৪৩ কোটি টাকা। সেই হিসেবে এবার রফতানি আদেশ বেড়েছে ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা।

এছাড়া, মেলায় ৮৭ কোটি ৮৩ লাখ টাকার পণ্য বিক্রি হয়েছে। আর ২০১৭ সালে যার পরিমাণ ছিল ১১৩ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এবারের মেলায় অংশ নেয়া হাতিল, ডেলটা, পার্টেক্স, নাদিয়া, নাভানার মতো ফার্নিচার প্রতিষ্ঠানসহ এসএমই ফাউন্ডেশন কেউই এখনো পর্যন্ত কোনো রফতানি আদেশ পায়নি।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ জানান, এবার ২০ মিলিয়ন ডলার বা ১৬৬ কোটি ২৪ লাখ টাকার রফতানি আদেশ পেয়েছে বাংলাদেশি কোম্পানিগুলো। রাজনৈতিক অস্থিরতা না থাকায় এবারের বাণিজ্য মেলা সফল ও স্বার্থক হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজনৈতিক সহিংসতার দুই বছর ২০১৫ ও ২০১৪ সালে রফতানির আদেশ ছিল যথাক্রমে ৯৫ কোটি ও ৮০ কোটি টাকা। তার আগের বছর ২০১৩ সালে রফতানি আদেশ এসেছিল ১৫৭ কোটি টাকা।

এদিকে, গত ৩১ জানুয়ারি বাণিজ্য মেলা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ব্যবসায়ীদের অনুরোধে সময় চার দিন বাড়ায় আয়োজক রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)। এবারের মেলায় ১৩ ক্যাটাগরিতে ৪৩টি প্যাভিলিয়ন ও স্টলকে পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, দেশে আমরা ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ দেখতে চাই। কোনো ধরনের অস্বস্তিকর পরিবেশ ব্যবসায়ীরা চান না।

সভাপতির বক্তব্যে বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু বলেন, পণ্যের পাশাপাশি আমাদের সেবা রফতানির দিকে নজর দিতে হবে। এখন অনেক কোম্পানিই আসছে যারা সেবা গ্রহণ করতে চাচ্ছে। আমরা সেবা রফতানির ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে উল্লেখযোগ্য স্তরে পৌঁছাতে পারব।

এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম, ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য।

কেএইচ/এএল

 
.


আলোচিত সংবাদ