ভুল চিকিৎসায় স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যুতে ঢাবিতে মানবন্ধন

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ভুল চিকিৎসায় স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যুতে ঢাবিতে মানবন্ধন

ঢাবি প্রতিনিধি ১:১৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৯

ভুল চিকিৎসায় স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যুতে ঢাবিতে মানবন্ধন

ভুল চিকিৎসায় মারা যাওয়া স্কুল শিক্ষিকা নওশীন দিয়ার মৃত্যুর জন্য দায়ি আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সকালে সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

সহপাঠীর বোনের এমন মৃত্যুতে বিচারের দাবিতে মানববন্ধনের আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের মুন্সেফপাড়া ক্রিসেন্ট কিন্ডার গার্টেন স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা নওশীন আহাম্মদ দিয়া খ্রীষ্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের পরিচালক ডা. ডিউক চৌধুরী, ডা. অরুনেশ্বর পাল অভি ও ডা. মো. শাহাদাত হোসেন রাসেলের ভুল চিকিৎসায় গত ৪ নভেম্বর মারা যায়।

মানবন্ধনে রোকেয়া হলের ভিপি ঢাবি শিক্ষার্থী ইসরাত জাহান তন্নী বলেন, চিকিৎসা ব্যবস্থা আজ ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। রোগীদের প্রতি চিকিৎসকের দায়বদ্ধতা থাকেনা। অবহেলায় অযত্নে মারা যায় রোগীরা। তারই সাক্ষী আমাদের বোন দিয়া। জড়িত চিকিৎসকদের এমনভাবে শাস্তি দেওয়া হোক যাতে আর কোন চিকিৎসক এই ভুল করার সাহস না পায়।

মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকদেরও যদি ভুল চিকিৎসায় মারা যেতে হয় তাহলে আমাদের ভাবতে হবে আমরা কোথায় আছি। দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে এমন ঘটনা অহরহ ঘটবে ঘটবে এমন মন্তব্যও করেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, আমাদের বোনকে ভুল চিকিৎসার কারণে এইভাবে মারা যেতে হয়েছে। মাত্র ছয় দিনের একজন নবজাতক এবং ছয় বছরের একজন শিশুকে রেখে মারা যান আমাদের বোন। এখন শিশুদের অবস্থা কেমন হবে এমন প্রশ্নেও রাথেন তারা।

এমন দায়িত্বহীন চিকিৎসক ও হাসপাতাল চালু থাকলে ভবিষ্যতে আরও এমন মৃত্যুর যন্ত্রণা আমাদের বয়ে বেড়াতে হবে।দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করে চিকিৎসক সমাজকে একটি বার্তা দেওয়া উচিত বলেও মনে করেন শিক্ষার্থীরা।

অভিযুক্ত চিকিৎসকদের অবিলম্বে সর্বোচ্চ শাস্তি এবং খ্রীষ্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

এএইচ/এমকে

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও