মাঠ ছাড়লেও ক্লাসে না যাওয়ার ঘোষণা শিক্ষার্থীদের (ভিডিও)

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মাঠ ছাড়লেও ক্লাসে না যাওয়ার ঘোষণা শিক্ষার্থীদের (ভিডিও)

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৬:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৫, ২০১৯

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের খুনিদের স্থায়ী বহিষ্কারাদেশ না আসা পর্যন্ত সব ধরনের একাডেমিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বুয়েট শহীদ মিনারের পাদদেশে এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এ তথ্য জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে সায়েম।

সায়েম বলেন, ‘আমরা আন্দোলন দীর্ঘায়িত না করে, মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন স্থগিত করছি। তবে পুলিশ চার্জশিট দাখিল করার পর, চার্জশিটভুক্তদের বুয়েট থেকে স্থায়ী বহিষ্কার না করা পর্যন্ত আমরা কোনো একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেব না। খুনিদের সাথে এক ক্যাম্পাসে আমরা ক্লাস করবো না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আগামীকাল বুয়েট রাজনীতিমুক্ত ও নিরাপদ ক্যাম্পাস নিশ্চিত করতে গণশপথ কর্মসূচি পালন করা হবে৷ শিক্ষকদের সাথে বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে পরবর্তীতে কর্মসূচির সময় জানিয়ে দেয়া হবে।’

আন্দোলনরতদের পক্ষে এই শিক্ষার্থী আরো বলেন, ‘আমাদের চলমান আন্দোলনকে ঘিরে কিছু স্বার্থান্বেষী সংগঠন নিজেদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে। আমরা মানুষকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ করছি। তাই চলমান আন্দোলনকে দীর্ঘায়িত করে কাউকে সুযোগ দিতে চাই না। এ কারণে আমরা মাঠ পর্যায়ের আন্দোলনের ইতি টানছি।’

এ সময় আবরার হত্যার বিচারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ নজর রাখায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন আন্দোলনকারীরা।

একই সাথে শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেয়ায় বুয়েট কর্তৃপক্ষকে এবং আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের আইনের আওতায় আনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ধন্যবাদ জানান তারা।

প্রসঙ্গত, আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৭তম ব্যাচের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি কুষ্টিয়া জেলায়। রোববার (৬ অক্টোবর) দিনগত রাত ৮টার দিকে শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে কয়েকজন আবরারকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর রাত দুইটা পর্যন্ত তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে শেরে বাংলা হলের একতলা ও দোতলার মাঝখানের সিঁড়ি থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পিএসএস/এইচআর

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও