বশেমুরবিপ্রবি ভিসির অপসারণ দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

বশেমুরবিপ্রবি ভিসির অপসারণ দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

বশেমুরবিপ্রবি সংবাদদাতা ৬:১৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

বশেমুরবিপ্রবি ভিসির অপসারণ দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খন্দকার নাসির উদ্দিনের অপসারণ দাবিতে আন্দোলন চলছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা এই আন্দোলন করছে।

গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্রী ও ডেইলি সানের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে ফেইসবুক স্ট্যটাসের কারণে সাময়িক বহিষ্কার করে প্রশাসন।

এরই ফলশ্রুতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে আন্দোলনের ডাক দেয় বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্ট ফেডারেশন।

সাংবাদিকদের তীব্র আন্দোলনেরর মুখে বুধবার জিনিয়ার বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। বুধবার দিনগত রাত ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের একাংশ ফেইসবুক লাইভের মাধ্যমে ভিসির সব অনিয়ম, দুর্নীতি, ভর্তি বাণিজ্য, নারী কেলেঙ্কারি ইত্যাদি তুলে ধরে সবাইকে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে বলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, সাধারণ শিক্ষার্থীরা হাতে প্ল্যাকার্ড, ব্যানার, ফেস্টুনে ভিসির বিভিন্ন অপকর্মের কথা লিখে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। এসময় ভিসির কুশপুত্তলিকা দাহ করানো হয়।

এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘খন্দকার নাসিরউদ্দিন দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই স্বৈরাচারী হয়ে উঠেছেন। কথায় কথায় বহিষ্কার করেন। সামান্য একটা ফেসবুক পোস্টের কারণে তিনি আমাদের শিক্ষার্থী জিনিয়াকে বহিষ্কার করেছেন। এর আগেও তিনি বিভিন্নজনকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করেছেন।’

‘এছাড়া তার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারী, দুর্নীতি, ভর্তি বাণিজ্য, শিক্ষক নিয়োগে বাণিজ্য ইত্যাদির অভিযোগ রয়েছে।’

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, ‘সম্প্রতি তিনি তার ক্যাডার বাহিনী দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শামস জেবিনের ওপর হামলা করেছেন। আমরা বঙ্গবন্ধুর মাটিতে এমন স্বৈরাচার ভিসি চাই না।

এসময় শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন।

তারা বলেন, ‘আমাদের দাবি যতক্ষণ পর্যন্ত না মানা হবে ততক্ষণ আন্দোলন চলবে।’

আরই/এইচআর

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও