যৌন নির্যাতনকারী রমজানের স্থায়ী বহিষ্কার দাবি হাবিপ্রবি শিক্ষক ফোরামের

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

যৌন নির্যাতনকারী রমজানের স্থায়ী বহিষ্কার দাবি হাবিপ্রবি শিক্ষক ফোরামের

হাবিপ্রবি দিনাজপুর ৪:২৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯

 যৌন নির্যাতনকারী রমজানের স্থায়ী বহিষ্কার দাবি হাবিপ্রবি শিক্ষক ফোরামের

যৌন নির্যাতনকারী বায়োক্যমিস্টি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের সহকারী প্রফেসর ড. রমজানের স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেট সংলগ্ন দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়কে দুপুর ১২টায় এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষক।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মামুনুর রশীদের সঞ্চালনায় ও প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সভাপতি প্রফেসর ড. বলরাম রায় বলেন, ২০১৭ সাল থেকে আমরা এই রমজান আলীর বিচারের দাবিতে আন্দোলন করছি। হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটি যে রায় দিয়েছে এবং পত্র-পত্রিকায় মাধ্যমে যে রায় দেয়ার কথা তা দেয়া হয়নি। বিশ্বিবদ্যালয়ের প্রসাশনের একটি অংশ তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। আমরা তাদেরকে বলতে চাই দিনাজপুরবাসী ইয়াসমিন হত্যার বিচার করেছে, আমরাও দিনাজপুরের এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রমজানের বিচার করে বিশ্ববিদ্যালয়কে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই।  

সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. এসএম হারুনুর রশীদ লিখিত বক্তব্যে বলেন, রমজান আলী তার যৌন লালসা মেটানোর দাবিতে কৌশলে ছাত্রীকে বাসা বা অন্য কোথায় গিয়ে রাত্রীযাপনের পাঁয়তারা করেছে যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ছাত্রীর মোবাইল ফোনের রেকর্ড পর্যালোচনা করেও তার প্রমাণ পাওয়া যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ড পর্যালোচনা ছাড়াই তাকে নামমাত্র শাস্তিস্বরুপ সর্তকতা ও গবেষণা থেকে অব্যাহতি দেয়। কিন্তু পরবর্তীতে রিজেন্ট বোর্ডে তার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা থাকলেও সেটা আংশিক উপস্থাপন করা হয়। এরপর তার স্ত্রীর দেয়া আরেকটি যৌতুক মামলা দেখিয়ে স্থায়ী বহিষ্কার থেকে দূরে রাখা হয় যেটার সাথে ওই যৌন হয়রানি ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই।

তিনি আরো বলেন, অতিদ্রুত যেকোনো প্রকার অপকৌশলের প্রক্রিয়া গ্রহণ না করে রিজেন্ট বোর্ডের জরুরি সভা করে তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী রমজান আলীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানানো হচ্ছে।

এছাড়াও মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম, দিনাজপুরের অনাচার প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম, দিনাজপুরের সাংস্কৃতিক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুলতান কামাউদ্দীন বাচ্চু, সামাজিক অনাচার পরিষদের মারুফা বেগম, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার্থী  দীপক বিশ্বাস।

উল্লেখ্য, সহকারী অধ্যাপক ড. রমজান আলীর বিরুদ্ধে ছাত্রীকে মানসিক হয়রানি, ক্যাম্পাসে কাজের মেয়ের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন ও রাজশাহী নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে তার স্ত্রীর যৌতুকের মামলার অভিযোগ রয়েছে।

এইচআর

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও