ছাত্রলীগ সম্পাদককে বহিস্কারের দাবিতে উত্তাল ইবি

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

ছাত্রলীগ সম্পাদককে বহিস্কারের দাবিতে উত্তাল ইবি

ইবি প্রতিনিধি ৫:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯

ছাত্রলীগ সম্পাদককে বহিস্কারের দাবিতে উত্তাল ইবি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের বহিস্কারের দাবিতে চতুর্থ দিনের মত আন্দোলন করছে দলীয় পদবঞ্চিত বিদ্রোহী গ্রুপের নেতাকর্মীরা।

ক্যাম্পাসে গাড়ি চালক নিয়োগে বাণিজ্যের অভিযোগে সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে এ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে তারা। সাধারণ সম্পাদককে বহিস্কার করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানিয়েছে তারা।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, গেল ৮ সেপ্টেম্বর শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের ক্যাম্পাসের গাড়ি চালক নিয়োগ বাণিজ্যের একটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হয়।

অডিও থেকে জানা গেছে, অজ্ঞাত ব্যক্তির সাথে টাকার বিনিময়ে কোন এক প্রার্থীকে গাড়ি চালক পদে নিয়োগ পাইয়ে দেবেন বলে টাকা দাবি করে সাধারণ সম্পাদক।

পরে ৯ সেপ্টেম্বর আরো একটি অডিও রেকর্ড ফাঁস হয় সাধারণ সম্পাদকের। ওই অডিওতে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাহমুদুল হাসান নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে নেতা বানানোর কথা বলেন তিনি।

এনিয়ে ক্যাম্পাসে তোলপাড় অবস্থার সৃষ্টি হয়। এদিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের কমিটি বিলুপ্ত হয়। পরে ক্যাম্পাসে আন্দোলন শুরু করে ইবি শাখা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত বিদ্রোহী গ্রুপ। তারা চলমান কমিটিকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে।

মঙ্গলবার চতুর্থ দিনের মত আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এই দাবিতে ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ মিছিল বের করে তারা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঘুরে উপাচার্যের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। পরে আন্দোলনরতরা ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানের কাছে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ওঠা নিয়োগ বাণিজ্যের বিচার নিশ্চিতের দাবি জানান।

আন্দোলনে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিদ্রোহী গ্রুপের ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত, মিজানুর রহমান লালন, শিশির ইসলাম বাবু, তৌকির মাহফুজ মাসুদ প্রমুখ।তাদের সাথে মিছিলে শতাধিক নেতাকর্মীরা অংশ নেয়।

বিদ্রোহী গ্রুপের নেতাকর্মীদের দাবি, ‘শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে থেকে নিয়োগ বাণিজ্যের মত কাজ জড়িয়ে পড়া ঘৃণ্যতম ঘটনা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে দুর্নীতির সাথে জড়িয়ে পড়া ওই আদর্শের পরিপন্থী কাজ।

তারা বলেন, আমরা ভারপ্রাপ্ত উপাচার্যের কাছে সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে বহিস্কারের দাবি জানিয়েছি। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিচার না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান বলেন, এর আগেই কর্তৃপক্ষের সাথে এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি। উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী জরুরী কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তিনি ফিরে আসলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইআর/পিএসএস

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও