ছিনতাইকারী ছাত্রকে পুলিশে দিল জবি প্রশাসন

ঢাকা, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

ছিনতাইকারী ছাত্রকে পুলিশে দিল জবি প্রশাসন

জবি প্রতিনিধি ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯

ছিনতাইকারী ছাত্রকে পুলিশে দিল জবি প্রশাসন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) দুই শিক্ষার্থীকে ছিনতাই ও ছিনাতাইয়ে সহযোগিতার অভিযোগে পুলিশে হস্তান্তর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

অভিযুক্তরা হলেন, ফার্মেসি ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী আল ইকরাম অর্ণব ও পদার্থ ১৩ ব্যাচের নওশের বিন আলম ডেভিড। এদের মধ্যে অর্ণব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিস্কৃত।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার পর ক্যাম্পাস থেকে প্রক্টর ড. মোস্তফা কামালের উপস্থিতিতে ঐ দুইজনকে পুলিশে দেওয়া হয়।  এসময় সহকারী প্রক্টর নিউটন হালদার ও অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ মাহফুজ উপস্থিত ছিলেন।

প্রক্টরিয়াল বডি সূত্রে জানা যায়, গতমাসে ক্যাম্পাসে এক ছেলে ও মেয়েকে মারধর করে ছিনতাই করে অর্ণব ও তার সঙ্গীরা। এছাড়াও বাস ছাড়ার আগ মুহূর্তে মারমারিতে জড়ানোসহ বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে অর্ণবকে ধরতে পুলিশকে নিয়ে অভিযান চালায় প্রক্টরিয়াল বডি। অর্ণবকে গ্রেফতার করতে গেলে ডেভিড বাঁধা দিতে আসে। এসময় ডেভিডকেও গ্রেফতার করে পুলিশ।

এছাড়াও ডেভিডের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রিজন ভ্যানে হামলা, ছাত্রলীগের নারী কর্মীকে হয়রানি, সাংবাদিকদের উপর হামলা, সাধারণ শিক্ষার্থীদের হয়রানী, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।

এসময় পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যদের বাঁধা দিতে দেখা যায় ১২তম ব্যাচের সিএসসি বিভাগের আদর, ১২তম ব্যাচের নৃবিজ্ঞান বিভাগের মেহেদি হাসান সিফাত, ১১তম ব্যাচের গণিত বিভাগের পরাগসহ ১০-১৫ জন।

এবিষয়ে প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আল ইমরান অর্ণব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কৃত শিক্ষার্থী। এর আগেও ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ আছে। ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এসময় নওশের বিন আলম ডেভিড পুলিশকে বাঁধা দেওয়ায় তাকেও পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, যারা পুলিশের কাজে বাঁধা দিয়েছিল তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি তদন্ত মওদূদ রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দুইজন শিক্ষার্থীকে আমাদের হাতে তুলে দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে এখনো মামলা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে কথা বলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

জেটিএ/এআরই

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও