ঢাবিতে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ-সংঘর্ষ

ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ঢাবিতে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ-সংঘর্ষ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৯:০২ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০১৯

ঢাবিতে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ-সংঘর্ষ

সম্মেলনের এক বছর পর বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। গঠিত কমিটিতে পদবঞ্চিত ছাত্রনেতারা সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিল মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে দিয়ে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে গিয়ে হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন তারা।

এদিকে বিক্ষোভ করার সময় মধুর ক্যান্টিনের সামনে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পদবঞ্চিত ও বিক্ষোভকারী নেতাকর্মীরা জানান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারী ও নতুন কমিটিতে পদপ্রাপ্তরা তাদের উপর হামলা চালিয়েছে। এ সময় নারী নেত্রীদের গায়ে হাত তোলারও অভিযোগ করেন বিক্ষোভকারীরা।

তারা দাবি করেন, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে অছাত্র, শিবির-ছাত্রদলের কর্মী, বিবাহিত ও বিতর্কিতদের স্থান দেওয়া হয়েছে।

পদবঞ্চিত ছাত্রনেতাদের বিক্ষোভে ছাত্রলীগের গত কমিটির কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার শাহজাদা, প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন, জসিম উদ্দিন হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান, উপ অর্থ সম্পাদক তিলোত্তমা শিকদার, উপ সম্পাদক সৈয়দ আরাফাত, রোকেয়া হলের সভাপতি বিএম লিপি আক্তার, কুয়েত মৈত্রী হলের সভাপতি ফরিদা পারভীন, সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা, সাবেক সদস্য তানভীর হাসান সৈকত প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শামসুন নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিয়াসমিন শান্তা জানান, আমরা দীর্ঘদিন ছাত্রলীগ করেছি। কিন্তু আমাদের কোনো পদ দেওয়া হয়নি। আমরা নিয়মতান্ত্রিকভাবে বিক্ষোভ করছিলাম, কিন্তু সেখানে হামলা করা হয়েছে।

গত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু বলেন, একটি বিতর্কিত কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এই কমিটিতে শিবির কোটাধারীদের স্থান দেয়া হয়েছে। যারা ক্যাম্পাসে বিগত ১০ বছরে ছাত্রলীগের মিছিল-মিটিং করেছে, ডাকসু নির্বাচনসহ কোটা সংস্কার আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে তাদের এই কমিটিতে স্থান দেয়া হয়নি।

পিএসএস

আরও পড়ুন...
ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ